ভিডিও >মানবাধিকার লঙ্ঘনের জন্য দায়ীদের অবশ্যই জবাবদিহি করতে হবে: জোলি

রাখাইনে সহিংসতা ও রোহিঙ্গাদের বাস্তুচ্যুত করা বন্ধে সত্যিকারের প্রতিশ্রুতি দিতে এবং সেখানে সব সম্প্রদায়ের জন্য পরিস্থিতি উন্নত করতে মিয়ানমার কর্তৃপক্ষের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন জাতিসংঘ শরণার্থী সংস্থার (ইউএনএইচসিআর) বিশেষ দূত ও হলিউড অভিনেত্রী অ্যাঞ্জেলিনা জোলি।

 

মঙ্গলবার কক্সবাজারের কুতুপালং রোহিঙ্গা শিবির পরিদর্শন ও রোহিঙ্গাদের মুখ থেকে তাদের দুর্দশার কথা শুনে সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ আহ্বান জানান।

জোলি বলেন, মানবাধিকার লঙ্ঘনের জন্য দায়ীদের অবশ্যই জবাবদিহি করতে হবে।

তিনি রাখাইন উপদেষ্টা কমিশনের সুপারিশগুলো বাস্তবায়ন এবং ইউএনএইচসিআর ও অন্যদের সাথে কাজ করার প্রতি জোর দেন। তবে তিনি বলেন, রোহিঙ্গারা এ মুহূর্তে মিয়ানমারে ফিরে যেতে পারবে না।

জোলি সোমবারও বিভিন্ন শিবির পরিদর্শন ও রোহিঙ্গাদের সঙ্গে কথা বলেন এবং তাদের গল্প শুনেন।

ইউএনএইচসিআরের বিশেষ দূত হিসেবে রোহিঙ্গাদের মানবিক প্রয়োজনগুলো নিরূপণ করতে এ অভিনেত্রী সোমবার সকালে কক্সবাজার আসেন।

আশ্রয়দানকারী দেশ হিসেবে বাংলাদেশ যেসব গুরুতর চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করছে তাও তিনি মূল্যায়ন করেছেন বলে ইউএনএইচসিআর জানিয়েছে।

বুধবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. একে আবদুল মোমেনসহ অন্য সিনিয়র কর্মকর্তাদের সঙ্গে আনুষ্ঠানিক বৈঠক করে বাংলাদেশ সফর শেষ করবেন এ বিশেষ দূত।

অ্যাঞ্জেলিনা জোলি এর আগে ২০০৬ সালে ভারত ও ২০১৫ সালের জুলাইয়ে মিয়ানমার সফরকালে বাস্তুচ্যূত রোহিঙ্গাদের সঙ্গে দেখা করেছিলেন।

print

LEAVE A REPLY