ভারতে ভেজাল মদ পানে নিহত ৭০

ভারতের উত্তর প্রদেশ ও উত্তরাখণ্ডে ভেজাল মদপানে গত তিনদিনে নিহতের সংখ্যা বেড়ে অন্তত ৭০ জনে দাঁড়িয়েছে। এর আগে এ ঘটনায় মৃতের সংখ্যা ৪৪ জন বলে জানানো হয়েছিল।

শনিবার দেশটির গণমাধ্যমের একটি প্রতিবেদনে বিষয়টি নিশ্চিত হওয়া গেছে। মৃতের সংখ্যা আরো বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা যাচ্ছে বলেও জানিয়েছে ভারতীয় গণমাধ্যম এনডিটিভি।

এ ঘটনায় সন্দেহভাজন আট বেআইনি মদ ব্যবসায়ীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। সেই সঙ্গে প্রাদেশিক সরকার ১২ পুলিশ সদস্যসহ ৩৫ কর্মকর্তাকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করেছে।

ভেজাল মদপানের পর অসুস্থ হয়ে পড়া আরো প্রায় দুই ডজন লোক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন। মৃতের সংখ্যা আরো বাড়তে পারে বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা।

জানা গেছে, উত্তর প্রদেশ রাজ্যের সাহারনপুর জেলায় ৩৬ জন এবং কুশিনগর জেলায় ৮ জন নিহত হয়েছে। এছাড়া উত্তরাখণ্ডে মারা গেছে ২৮ জন। এছাড়া বেশ কয়েকজন অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে।

ঘটনার তদন্তের দায়িত্বে থাকা জ্যেষ্ঠ পুলিশ কর্মকর্তা অশোক কুমার জানিয়েছেন, উত্তর প্রদেশ রাজ্যের সাহারনপুর জেলায় ৩৬ জন এবং কুশিনগর জেলায় ৮ জন নিহত হয়েছে। এছাড়া উত্তরাখণ্ডে মারা গেছে ২৮ জন। উত্তরাখণ্ডে বেশিরভাগ মৃত্যুর খবর বলপুর গ্রাম থেকে পাওয়া গেছে।

সাহারানপুরের জেলা হাকিম একে পাণ্ডে বলেছেন, যদি প্রথমেই চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হতো তাহলে মৃতের সংখ্যা অনেক কম হতো। দ্বিতীয় বিষয়, পিন্টু নামের এক ব্যক্তির সঙ্গে ৩০ থলি (মদ) নিয়ে এসে সেগুলো বিক্রি করে। এগুলো থেকে যারা পান করেছে তারাও মারা গেছে অথবা হাসপাতালে আছে।

এ ঘটনার পর মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের নির্দেশনায় উত্তর প্রদেশ রাজ্য পুলিশ অবৈধ মদ উৎপাদনকারী ও বিক্রেতাদের বিরুদ্ধে অভিযান শুরু করেছে। রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় অভিযান চালানো হচ্ছে এবং বান্ডা এলাকা থেকে বিপুল পরিমাণ অবৈধ মদ জব্দ করা হয়েছে। পাশাপাশি ৩০ জনেরও বেশি লোককে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

এর আগে ২০১১ সাল থেকে উত্তর প্রদেশে ভেজাল মদ পানের আটটি ঘটনায় ১৭৫ জনেরও বেশি লোকের মৃত্যু হয়। এসব ঘটনার চারটি আদিত্যনাথ সরকারের আমলেই ঘটেছে।

print

LEAVE A REPLY