বাসাইলে আঃলীগের দুই গ্রুপে সংঘর্ষে আহত ১৫

টাঙ্গাইলের বাসাইলে উপজেলা নির্বাচনকে কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগের দুই প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষে প্রায় ১৫জন আহত হয়েছে। সোমবার সকালে আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হাজী মতিয়ার রহমান গাউস ও স্বতন্ত্র প্রার্থী উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি কাজী অলিদ মনোনয়নপত্র জমা দেয়ার প্রস্তুতি নেন। এ সময় বাসাইল বাসষ্ট্যান্ডে দুই পক্ষ মিছিল বের করে। মিছিলকে কেন্দ্র করে দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ বেধে যায়। এতে ১৫ জন আহত হয়েছে। আহতদের বাসাইল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। সংঘর্ষের সময় বঙ্গবন্ধু ও শেখ হাসিনার ছবিসহ অফিস ভাঙচুর করে আক্রমনকারীরা।

সংঘর্ষের পর বাসাইল প্রেসক্লাবে এক সাংবাদিক সম্মেলনে আওয়ামী লীগের চেয়ারম্যান প্রার্থী ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হাজী মতিয়ার রহমান গাউস অভিযোগ করে বলেন, কাজী অলিদের নেতৃত্বে তার সমর্থকরা আমাদের উপর হামলা করে। এ সময় আমার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে অতর্কিতভাবে হামলা করে তার সমর্থকরা। ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্থ হয় আমার ব্যবসা প্রতিষ্ঠান। পাশেই উপজেলা আওয়ামী লীগের অফিসেও হামলা করে। তারা বঙ্গবন্ধু ও শেখ হাসিনার ছবিসহ অফিস ভাঙচুর করে। এ ঘটনায় আমাদের ১০জন নেতাকর্মী আহত হয়।

অপর দিকে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও উপজেলা নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী কাজী অলিদ ইসলাম বলেন, কেন্দ্র যেহেতু সবার জন্য নির্বাচন উম্মুক্ত করেছে। সে কারণেই আমি নির্বাচন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। আমরা মনোনয়ন পত্র জমা দেয়ার জন্য বাসষ্ট্যান্ড এলাকায় এলে হাজী গাউসের সমর্থকরা আমাদের উপর হামলা করে।এ সময় আমার ৫ জন নেতাকর্মী আহত হয়। বঙ্গবন্ধুর ছবি তারাই ভেঙে আমাদের উপর দোষ চাপাচ্ছে। দলীয় সভাপতি হিসেবে এ ব্যাপারে মামলা করার প্রস্তুতি নিচ্ছি।

এ ঘটনায় দুই গ্রুপের প্রায় ১৫জন নেতাকর্মী আহত হয়। সংঘর্ষে যারা আহত হয়েছে তারা হচ্ছে: বাসাইল উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি কামরান খান বিপুল , খান মাহমুদ রোকন, সোহাগ খান, বাসাইল উপজেলা আওয়ামিলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সফিউল আরেফিন খানশুর সুজনসহ প্রায় ১৫ জন। এদিকে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। পরবর্তীতে সংঘর্ষ এড়াতে বাসাইল বাসস্ট্যান্ডে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

print

LEAVE A REPLY