সংসদে ‘বাকের ভাই ও মুনা’!

নব্বইয়ের দশকের টিভি নাটক ‘কোথাও কেউ নেই’-এর জনপ্রিয় দুই চরিত্র– বাকের ভাই ও মুনা। বাকের ভাই ও মুনা চরিত্র দুটি বাংলাদেশের ইতিহাসে অন্যতম জনপ্রিয় চরিত্র। আর এই দুই চরিত্রে অভিনয় করা দু’জনই এখন সংসদ সদস্য।

বুধবার সংসদের বৈঠকে বক্তব্যের শুরুতেই আসাদুজ্জামান নূর বলেন, ‘আমি বক্তব্যের শুরুতে একটু ৩০ বছর পেছনে চলে যেতে চাই। আজ আমি নস্টালজিক।’

‘কোথাও কেউ নেই’ নাটকের প্রেক্ষাপট তুলে ধরে নূর বলেন, ‘নাটকে বাকের ভাইয়ের ফাঁসি হয়। মুনা নিঃসঙ্গ নায়িকায় পরিণত হয়। তবে আজকে তিনি আর নিঃসঙ্গ নন। তিনি আজকে এই মহান সংসদে সাড়ে ৩০০ সংসদ সদস্যের সঙ্গে বসে আছেন এবং সেই বাকের ভাই চরিত্রে অভিনয় করেছিলাম আমি, আপনার সামনে দাঁড়িয়ে আছি।’

তিনি আরও বলেন, ‘হুমায়ূন আহমেদ তার নাটকে যা করতে পারেননি, আজকে বাস্তবে এটা সম্ভব হয়েছে। সেই চরিত্রে যে অভিনয় করেছন– অসাধারণ শিল্পী সুবর্ণা মুস্তাফা আজকে আমাদের সংসদ সদস্য এবং এ সুযোগটি করে দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। আমি আমার পক্ষ থেকে, শিল্পী সমাজের পক্ষ থেকে তাকে আন্তরিক ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানাতে চাই।

জনপ্রিয় কথাসাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদের লেখা ও বরকত উল্লাহর পরিচালনায় নাটকটির কেন্দ্রীয় চরিত্রে অভিনয় করেন সাবেক সংস্কৃতিমন্ত্রী ও নীলফামারী-২ আসন থেকে নির্বাচিত আসাদুজ্জামান নূর। আর মুনা চরিত্রে অভিনয় করেন সুবর্ণা মুস্তাফা।
‘কোথাও কেউ নেই’ নাটকের শেষ পর্বে বাকের ভাইয়ের ফাঁসি হয়ে যায়। কিন্তু জনপ্রিয় ওই চরিত্রের এই পরিণতি মেনে নিতে পারেননি অধিকাংশ দর্শক। দেশের বিভিন্ন স্থানে ওই ফাঁসির বিরুদ্ধে প্রতিবাদ সমাবেশও অনুষ্ঠিত হয়।

print

LEAVE A REPLY