মঈন আলী ও ইমরান তাহিরের শাস্তি হলে ভারতের বিরুদ্ধে কেন নয়?

ক্রিকেট ম্যাচে সেনা টুপি পরিধান নিয়ে ভারতীয় ক্রিকেটারদের শাস্তির দাবি জানিয়েছেন পিসিবি চেয়ারম্যান এহসান মানি। ভারতীয় ক্রিকেটারদের এমন আচরণের কারণে কঠোর ব্যবস্থা জানিয়েছে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি)।

অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে তৃতীয় ওয়ানডে ম্যাচে টসে আগে সবার মাঝে ভারতীয় সেনা ক্যাপ বিতরণ করেন ভারতীয় সেনাবাহিনীর অনারারি লেফটেন্যান্ট ও দেশটির তারকা ক্রিকেটার মাহেন্দ্র সিং ধোনি।

এ বিষয়ে করাচিতে সাংবাদিকদের উদ্দেশে পিসিবি চেয়ারম্যান এহসান মানি বলেন, আমরা চাই ভারতীয় ক্রিকেটারদের ঔদ্ধত্যপূর্ণ আচরণের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হোক। আইসিসি আমাদের এ অবস্থানের বিষয়ে আইসিসির ভুল বুঝার সুযোগ নেই। আমরা বিশ্বাস করি, ক্রিকেট ও খেলাধুলায় রাজনীতিকে জড়ানো উচিত নয়। এটা আমাদের পরিষ্কার বক্তব্য। অথচ তারা ক্রিকেট বিশ্বে নিজেদের খুবই বাজেভাবে উপস্থাপন করছে।

সেনা ক্যাপ পরিহিত ভারতীয় ক্রিকেটাররা

সেনা ক্যাপ পরিহিত ভারতীয় ক্রিকেটাররা

এদিকে ভারতীয় অধিনায়ক ভিরাট কোহলি জানিয়েছেন এই ক্যাপ পরার উদ্দেশ্য ছিল আমাদের প্রতিরক্ষা তহবিলকে আরও সহযোগিতার জন্য প্রেরণা দেয়া। যাতে আমাদের শহীদদের পরিবারের ছেলেমেয়েদের শিক্ষাক্ষেত্রে সহায়তা করা। কোহলি বলেন, এটা ছিল পালওয়ামায় সংঘটিত আক্রমনে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানানো। সব খেলোয়াড়রা সিদ্ধান্ত নিয়েছিল যে, তাদের ম্যাচ ফি (তৃতীয় ওয়ানডে) সবটাই নিহতদের পরিবারের সহায়তায় দান করা।তাই স্পেশাল ম্যাচে স্পেশাল টুপি পরেছিলাম আমরা

পিসিবি চেয়ারম্যান এহসান মানি এ বিষয়ে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চেয়ে বলেন, ২০১৪ সালে ভারতের বিরুদ্ধে তৃতীয় টেস্টে ইংল্যান্ডের অলরাউন্ডার মঈন আলী ‘সেভ গাজা’ ও ‘ফ্রি ফিলিস্তিন’ লেখা রিস্টব্যান্ডস পরার কারণে নিষিদ্ধ হয়েছিলেন। ইংল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ড তখন মঈন আলীর পক্ষ নিলেও আইসিসি এটাকে ‘মানবিকতার চেয়ে রাজনীতি’ হিসেবেই বর্ণনা করেছিল। ম্যাচ রেফারি ডেভিড বোন তখন মঈন আলীকে আইসিসির পোশাক ও উপকরণ নীতিমালার কথা বলেন।

একইভাবে শ্রীলংকার বিরুদ্ধে সাউথ আফ্রিকান ক্রিকেটার ইমরান তাহির যখন পাকিস্তানের বিমান দুর্ঘটনায় নিহত শিল্পী জুনায়েদ জামশেদের টি-শার্ট পরে মাঠে নামেন তখন তিনিও একই পরিস্থিতির সম্মূখীন হন।

মানি বলেন, ইতিমধ্যে দুটি উদাহরণ তো আমাদের কাছে স্পষ্ট। ইমরান তাহির ও মঈন আলী যদি আইসিসির শাস্তি পায় তাহলে একই শাস্তি ভারতের ক্ষেত্রেও প্রযোজ্য।

আমরা আগামী ১২ ঘণ্টা আইসিসির পদক্ষেপ পর্যালোচনা করব। যদি এর কোনো পরিবর্তন না হয় তবে আমরাও কঠোর অবস্থানে যাবো। আমরা চাই না ক্রিকেটে রাজনীতি থাকুক অথবা রাজনীতিতে ক্রিকেট ব্যবহার হোক।

সূত্র: ডন, ইএসপিএন, টাইমস অব ইন্ডিয়া

print

LEAVE A REPLY