অস্ট্রেলিয়ায় চাকরি দেয়ার নাম করে ভানুয়াতুতে আটকা বাংলাদেশিরা

অস্ট্রেলিয়ার পার্শ্ববর্তী দেশ ভানুয়াতু। বাংলাদেশ থেকে যাওয়া বেশ কিছু শ্রমিক আটকা পড়ে আছেন প্রশান্ত মহাসাগরীয় দ্বীপরাষ্ট্র ভানুয়াতুতে। অস্ট্রেলিয়ায় চাকরি দেয়ার নাম করে তাদের সেখানে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। স্বচ্ছল জীবনের আশায় সর্বস্ব ত্যাগ করে যাত্রা করা শ্রমিকরা এখন বন্দি দশা থেকে মুক্তির অপেক্ষায়।

বার্তা সংস্থা রয়টার্সের এক প্রতিবেদন বলছে, গত দুই বছরে ১০১ জন বাংলাদেশি অভিবাসনপ্রত্যাশী পাচারকারীদের হাতে প্রতারিত হয়ে অস্ট্রেলিয়ার নিকটবর্তী ঐ দ্বীপরাষ্ট্রটিতে গেছেন। শ্রমিকদের দাবি, ভানুয়াতু ও অস্ট্রেলিয়াতে ভালো চাকরি দেবার নামে তাদেরকে নিয়ে যাওয়া হলেও এখন পর্যন্ত তারা সেখানেই আটকে আছেন।

শ্রমিকদের নিয়ে যাওয়া পাচারকারীদের কয়েকজনকে ইতোমধ্যে মানবপাচারের দায়ে আটক করেছে ভানুয়াতু কর্তৃপক্ষ। স্থানীয় এক মানবাধিকার সংস্থার বরাত দিয়ে রয়টার্স জানায়, চারজন বাংলাদেশি মানবপাচারকারীকে আটক করা হয়েছে। আটককৃতদের আদালতে হাজির করার প্রক্রিয়া চলছেও বলে জানিয়েছে সংস্থাটি।

বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, বাংলাদেশি এ নাগরিকদের বিষয়ে বিস্তারিত তথ্য চেয়ে ইতোমধ্যে তারা আন্তর্জাতিক অভিবাসন সংস্থার মাধ্যমে ভানুয়াতু সরকারের সঙ্গে যোগাযোগ করেছে। তবে এখন পর্যন্ত এ বিষয়ে বিস্তারিত তথ্য পায়নি বলে দাবি তাদের।

এদিকে, আটকে থাকা বাংলাদেশিদের ফেরত পাঠানোর বিষয়ে দেশটির আদালতের নির্দেশের অপেক্ষায় আছে ভানুয়াতু সরকার। দেশটির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রয়টার্সকে এই তথ্য জানিয়েছেন।

আটক ১০১ বাংলাদেশির মধ্যে দুজন শিশুও রয়েছেন উল্লেখ করে রয়টার্স বলছে, তারা সেখানে মানবেতর জীবনযাপন করছেন।

ভানুয়াতু হিউম্যান রাইটস কোয়ালিশনের প্রধান আন্নে পাকোয়া জানান, অভিবাসীদের জন্য সেখানে পর্যাপ্ত খাবার নেই। এমনকি নেই ভালো কোনো চিকিৎসা ব্যবস্থাও।

ভানুয়াতুতে আটকে থাকার অনিশ্চয়তার পাশাপাশি শ্রমিকরা এখন উদ্বিগ্ন তাদের ভবিষ্যৎ নিয়ে। আটকে থাকাদের একজন হারুন আর রশিদ জানান, পাচারকারীরা তাকে অস্ট্রেলিয়াতে বিক্রয়কর্মীর কাজ দেবেন বলে প্রলোভন দেখায়। আর এ জন্য তিনি ভিটেমাটি বিক্রি ও ধার করে ২০ লাখ টাকা দিয়েছিলেন।

হারুন আর রশিদ বলেন,‘এখানে থেকেও আমরা কিছুই করতে পারবো না। আবার দেশে ফেরত গেলেও আমাদের কী হবে জানি না। ভানুয়াতুতে এনে আমাদেরকে জোর করে নির্মাণ শ্রমিকের কাজ করানো হয়। আমাদের ওপর শারীরিক নির্যাতন করা হয়।’

তিনি আরো বলেন,‘কাজ করার পর প্রাপ্য পাওনাটুকুও আমাদের দেয়া হয় না।’

এদিকে আটকে থাকা এ শ্রমিকরা ভানুয়াতু সরকারের ও আন্তর্জাতিক অভিবাসী সংস্থার সহযোগিতায় অবস্থান করছেন। আটকে পড়াদের অনেকের বৈধ কাজের অনুমতি থাকলেও অনেকেরই তা নেই।

পাচারের শিকার হওয়া বাংলাদেশি অভিবাসন প্রত্যাশীরা অভিযোগ করেছেন, টাঙ্গাইল ও বরিশাল অঞ্চলের একটি পাচারচক্রের দ্বারা প্রতারিত হয়েছেন তারা। এ চক্রটি চাকরি দেবার নাম করে তাদেরকে ভারত, সিঙ্গাপুর ও ফিজি হয়ে ভানুয়াতুতে নিয়ে আসে।

এদিকে, অস্ট্রেলিয়ায় বাংলাদেশের দূতাবাস থেকে জানানো হয়, ভানুয়াতুতে তাদের কোনো প্রতিনিধি নেই৷ তবে গত বছরের নভেম্বরে আন্তর্জাতিক অভিবাসী সংস্থার মাধ্যমে তারা আটকে থাকা এ বাংলাদেশিদের বিষয়ে জানতে পেরেছেন বলে জানায় দূতাবাস কর্তৃপক্ষ। দূতাবাসের একজন কর্মকর্তা রয়টার্সকে জানান, আটকে থাকাদের নাগরিকত্বের বিষয়ে বিস্তারিত তথ্য জানতে পারলে তাদের প্রত্যাবাসন প্রক্রিয়া শুরু করা যাবে।

উৎসঃ   নয়াদিগন্ত
print

LEAVE A REPLY