নখের খোঁচায় উঠে যাচ্ছে রাস্তার পিচ

সাতক্ষীরার দেবহাটা উপজেলার হাদীপুর-শ্মশানঘাট সড়ক নির্মাণে দুর্নীতি ও অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। হাতের নখের খোঁচাতেই রাস্তার পিচ উঠে যাওয়ায় ক্ষুব্ধ এলাকাবাসী ইউএনওর কাছে অভিযোগ জানিয়েছেন। ইউএনও বিষয়টি দেখার জন্য প্রকৌশলীকে নির্দেশ দিয়েছেন।

স্থানীয়রা জানান, হাতের নখের খোঁচাতেই সদ্য নির্মিত রাস্তার পিচ উঠে যাচ্ছে। রাস্তাটি সংস্কারের সময় এলাকাবাসী ঠিকাদারকে বার বার বললেও তিনি কোনো কর্ণপাত করেননি। যেনতেনভাবে উন্নয়ন কাজটি করা হয়েছে। এলজিইডি অফিসের কর্মকর্তাদের ম্যানেজ করে সরকারি উন্নয়ন প্রকল্পে হরিলুট করা হয়েছে। বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে জানানো হয়েছে।

তবে রাস্তার কাজে অনিয়মের বিষয়ে ঠিকাদার আবুল কালাম বলেন, কেরোসিন বেশি পড়ে যাওয়ায় ও রাস্তার নিচে গরুর গোবর থাকায় পিচ উঠেছে। এছাড়া নখের খোঁচায় পিচ উঠে যায় না। স্থানীয় লোকজন কুবুদ্ধি করে আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করছে।

উপজেলা এলজিইডি অফিস থেকে জানায়, হাদীপুর মাদরাসা থেকে শ্মশানঘাট পর্যন্ত ৯৭৫ মিটার ও সখিপুর আরঅ্যান্ডএইচ-কেয়ার রোড পর্যন্ত ৬৮৫ মিটার রাস্তা পিচ করার জন্য একটি প্যাকেজে ৫৪ লাখ ৭৮ হাজার ১৮৫ টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়। এলজিইডির আওতায় রাস্তা দুটির কাজ পায় মেসার্স সালেহা এন্টারপ্রাইজ। ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের মালিক দেবহাটা উপজেলার খেজুরবাড়িয়া গ্রামের আবুল কালাম। দরপত্র অনুযায়ী কাজ শুরু হয় চলতি বছরের ১১ এপ্রিল। কাজ শেষ হবে চলতি বছরের দুই জুলাই।

অভিযোগের বিষয়ে দেবহাটা উপজেলা প্রকৌশলী মমিনুল ইসলাম জানান, ঠিকভাবে রাস্তা নির্মাণ করার জন্য ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানকে বলা হয়েছে।

দেবহাটা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ইকবাল হোসেন জানান, অভিযোগ পেয়ে বিষয়টি এলজিইডির সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য বলা হয়েছে। তারা ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন।

jagonews

print

LEAVE A REPLY