ভিপি নুরের ফেইসবুক পোস্টে রাব্বানীর মন্তব্য অনুসারীদের বাকযুদ্ধ

‘ভোট ডাকাতি? নূর জানতো আমি ভিপি মনোনয়ন পাচ্ছি, ও জিএস এর ফর্ম নিয়েছিলো। যখন আমি জিএস মনোনয়ন পেলাম ও আবার সুইচ করে ভিপির ফর্ম কিনেছে। কি কারণে সেট নূরকে জিজ্ঞেস করেন।’ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের(ডাকসু) ভিপি নুরুল হক নুর তার ফেইসবুক টাইমলাইনে ৭ আগস্ট একটি স্ট্যাটাস দেয়ার পর এতে মন্তব্য করেন ডাকসু’র জিএস ও ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী। এরপর নুরুল হক নুর ও গোলাম রাব্বানীর অনুসারীরা মন্তব্যে বাকবিতন্ডায় জড়িয়ে পড়ে। এর এক পযার্য়ে গোলাম রাব্বানী উপরোক্ত মন্তব্য করেন।

নুর তার ফেইসবুক স্ট্যাটাসে লিখেন ‘‘হামলা-মামলা, মৃত্যুর ভয় নুর করে না। এসব হুমকি দিয়ে লাভ নেই। যে কয়দিন বাঁচবো বীরের মতো মাথা উঁচু করেই চলবো। কারো ভয় পিছু হঠা ছেলে নুর নয়। প্রয়োজনে সামনে থেকে রক্ত ঝরাবো তবে শেষ দেখে ছাড়বো। ভয় করলে সেই ১৮ সালের ৩০ শে জুনই থেমে যেতাম। জীবনের শেষ নিঃশ্বাস থাকা পর্যন্ত মানুষের অধিকার আদায়ে প্রতিবাদ-প্রতিরোধ, সংগ্রাম চলবে এবং সেটা এ দেশে থেকেই। পরিশেষে বলবো,‘যত বার হত্যা করো, জন্মাবো আবার, দারুণ সূর্য হবো লিখবো নতুন ইতিহাস।”

গোলাম রাব্বানী এই স্ট্যাটাসে তার প্রথম মন্তব্যে লিখেন,‘আমার ভিপিকে আবার কে হুমকি দিলো! কার এত সাহস? ক্লাস-পরীক্ষা বর্জনের ডাক দে, আবার তালা লাগা।’

এরপর শুরু হয় মন্তব্যে উভয়ের অনুসারীদের মধ্যে বাক বিতন্ডা। জাকির খান নামে এক ব্যক্তি গোলাম রাব্বানীকে উল্লেখ করে লিখেন,‘ভিপি কে তো তার সম্মান টাই দিয়ে কমেন্ট টা করতে পারলেন না, ক্লাস- পরীক্ষা বর্জনের ডাক দে, একজন ভিপিকে তুই সংবর্ধনা করা কি একজন ছাত্রলীগের মানায়?

এর জবাবে গোলাম রাব্বানী জাকির খানকে উল্লেখ করে লিখেন,‘ও আমার কর্মীরও কর্মী। ৭ বছরের ছোট, তো ছোট ভাইকে ভালোবেসে তুই না ডেকে আপনি ডাকলে ভালো হয়?’

তবে গোলাম রাব্বানীর এ কথার প্রতিবাদ জানাতে দেখা যায় অনেককে। অনেকে লিখেন নুর ভাই আপনার সাত বছরের ছোট হতে পারে কিন্তু তিনি ভিপি আর আপনি তার জিএস। তানভীর আহমেদ নামের একজন গোলাম রাব্বানীকে উল্লেখ করে লিখেন,‘নুর ভাই আপনার ছোট হতে পারে কিন্তু আপনার চেয়ে ওপরের পদে আছে। আপনার উচিত নুর ভাইকে যথাযথ সম্মান দেওয়া। ডাকসু’র constitution এ আছে- “The vice president shall be the chief executive officer of the union”।

আব্দুল ওয়াহেদ নামে একজন লিখেন,‘৩০ ডিসেম্বর ইলেকশন এ ভোট ডাকাতিতে যারা সহযোগিতা করে, তাদের থেকে এরকম মন্তব্য প্রত্যাশিত।’

এর জবাবে আব্দুল ওয়াহেদকে উল্লেখ করে গোলাম রাব্বানী উত্তরে লিখেন,‘ভোট ডাকাতি? নূর জানতো আমি ভিপি মনোনয়ন পাচ্ছি, ও জিএস এর ফর্ম নিয়েছিলো। যখন আমি জিএস মনোনয়ন পেলাম ও আবার সুইচ করে ভিপির ফর্ম কিনেছে। কি কারণে সেট নূরকে জিজ্ঞেস করেন। ও আমার আদরের ছোট ভাই। যদিও অনেকটা বিভ্রান্তিতে আছে, তবুও আমি চাই ছেলেটা কারো কুপরামর্শ নিয়ে আর বিপথে না যাক।’

রাশেদুজ্জামান রাশেদ নামের আর একজন লিখেন,‘ভাই আসেন খেলি কতগুলা ভোট পান দেখব। আমার তো মনে হচ্ছে মেম্বারিতে দাঁড়ালে নিজের ভোট ছাড়া আর ভোট পাবেন না ১০০%।’

গোলাম রাব্বানী রাশেদুজ্জামন রাশেদকে উত্তরে লিখেন,‘খেলার বয়সটা পার করে এসেছি ভাইয়া। এখন জাস্ট কাজে বিশ্বাসী।’

তবে নুরুল হক নুরকে কারও মন্তব্যে উত্তর দিতে দেখা যায়নি। গোলাম রাব্বানী জিএস পদে নির্বাচনে ফর্ম নেয়ায় আপনি ভিপির পদে সুইচ করে ফর্ম কিনেছেন এবিষয়ে বৃহস্পতিবার (৮ আগস্ট) রাতে মুঠোফোনে নুরুল হক নুর বলেন,‘এসব হল তার ফাতরামি কথাবার্তা।’

তিনি আরও বলেন,‘ছাত্রলীগ কোনো শিক্ষার্থীদের সংগঠন নয়। যদি শিক্ষার্থীদের সংগঠন হতো তাহলে ছাত্রলীগনেতারা কোটি কোটি টাকার মালিক হতে পারতেন না। সাবেক ছাত্রলীগ নেতাদের অবস্থা দেখেন। ছাত্রলীগে দলের হাইকমান্ড থেকে লুলা খোড়া যাকে মনোনয়ন দেয় তারাই নেতা হয়। তারা শিক্ষার্থীদের ভালোবাসা আর যোগ্যতায় নেতা হয় না।’

উৎসঃ   dainikamadershomoy
print

LEAVE A REPLY