সকালে ঢাকা থেকে রওনা দিয়ে সন্ধ্যায় পাটুরিয়ায়!

সময়ের সঙ্গে সঙ্গে সড়কে যানবাহনের চাপ বাড়ছে। সেই সঙ্গে বাড়ছে যানজট। এতে দুর্ভোগে নাকাল নাড়ীর টানে ঘরমুখী মানুষ। এছাড়া রাত বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে ভিড় বেড়েই চলেছে পাটুরিয়া ঘাটে।

মহাসড়কে যান চলাচল করছে ধীরগতিতে এতে করে দুর্ভোগে পড়ছে নারী, বৃদ্ধ ও শিশুরা। বিশেষ করে দূরপাল্লার বাসের যাত্রীদের দুর্ভোগ আরও বেশি। ঘণ্টার পর ঘণ্টা গাড়িতেই বসে থাকতে হচ্ছে তাদের। এতে অনেকেই অসুস্থ হয়ে পড়ছেন।

পাটুরিয়া ঘাটে কথা হয় যশোরগামী দূরপাল্লার পরিবহনের যাত্রী আবদুর রহমানের সঙ্গে। তিনি জানালেন, গাবতলী থেকে সকাল সাড়ে ১০টার দিকে রওনা দিয়ে পাটুরিয়া ঘাটে এসেছি সন্ধ্যায়। মাত্র ২ ঘণ্টার রাস্তা আসতে তার গাড়ির সময় লেগেছে ৮ ঘণ্টা।

ওই গাড়ির চালক আক্কাস আলীও যাত্রীর কথার সঙ্গে সুর মিলিয়ে বলেন, ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের সাভার ,নবীনগর, ধামরাই, মানিকগঞ্জের মহাদেবপুর, বরংগাইল আর উথলী হয়ে পাটুরিয়া ঘাটে আসতে এই লম্বা সময় লেগেছে। যেখানে স্বাভাবিক সময়ে গাবতলী থেকে পাটুরিয়া পর্যন্ত সময় লাগে ২ থেকে সর্বোচ্চ আড়াই ঘণ্টা।

শুক্রবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে লঞ্চ ও ফেরিঘাট এলাকায় গিয়ে দেখা যায় যাত্রীদের উপচে পড়া ভিড়। নদীতে তীব্র স্রোত থাকায় অধিকাংশ যাত্রী লঞ্চে পার না হয়ে ফেরিতে পার হচ্ছে।

কাটা গাড়িতে আসা যাত্রীরা জানান, সকাল সাড়ে ১০টার দিকে গাবতলী থেকে রওনা হয়ে পাটুরিয়া ঘাটে পৌঁছেছে সন্ধ্যা সোয়া ৭টার দিকে। নদীতে প্রচুর স্রোত, দুর্ঘটনা এড়াতে তাই ফেরিতে উঠেছি।

বাংলাদেশ অভ্যন্তরিন নৌ-পরিবহন কর্পোরেশন (বিআইডব্লিউটিসি) পাটুরিয়া ঘাটের বাণিজ্য বিভাগের সহকারী ব্যাবস্থাপক মহিউদ্দিন রাসেল বলেন, রাত যত গভীর হচ্ছে পাটুরিয়া ঘাটে যানবাহনের চাপ ততই বাড়ছে।

তিনি জানান, যাত্রীবাহী পরিবহন দুই শতাধিক, ছোট গাড়ি (প্রাইভেট কার) চার শতাধিক এবং পশুবাহী ট্রাক রয়েছে তিন শতাধিক পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌরুট পারাপারের অপেক্ষায় আছে।

এদিকে মানিকগঞ্জের টেপড়া থেকে বানিয়াজুরি পর্যন্ত থেমে থেমে প্রায় ১০ কিলোমিটার যানবাহনের বিশাল লম্বা লাইন পরে। মানিকগঞ্জ থেকে পাটুরিয়া পর্যন্ত ২৬ কিলোমিটার আসতে ২ ঘণ্টারও বেশি সময় লাগছে।

এদিকে ফেরিঘাটের লোড আনলোড স্বাভাবিক রাখতে ফেরি পার হতে আসা ব্যক্তিগত প্রাইভেটসহ ছোট গাড়িগুলো ঘাটের প্রায় ৭ কিলোমিটার আগে টেপড়া থেকে রূপসা হয়ে বিকল্প রাস্তা দিয়ে ঘাট এলাকায় যাচ্ছে।

বাংলাদেশ নৌ পরিবহন করপোরেশন ( বিআইডব্লিটিসি) আরিচা সেক্টরের ডিজিএম মো. আজমল হোসেন জানান, পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া রুটে ফেরির সংখ্যা বৃদ্ধি করে ২০টি করা হয়েছে। এতে যানবাহন পারাপার নির্বিঘ্ন হচ্ছে।

ফেরি সেক্টরের ব্যবস্থাপক (মেরিন) মোহাম্মদ সোবহান জানান, পদ্মা নদী পথের স্রোতের গতি কমেছে। এখন ফেরি পাটুরিয়া-থেকে দৌলতদিয়া পর্যন্ত যাতায়াতে ৪০/৪৫ মিনিট সময় লাগছে।

বরংগাইল হাইওয়ে পুলিশের ইনচার্জ ইয়ামিন-ই-দৌলা মহাড়কের যানবাহনের ধীরগতি ও মাত্রারিক্ত চাপের কারণ হিসেবে জানান, যে পরিমান গাড়ি এই সড়ক দিয়ে চলাচল করতো তার চেয়ে অনেকগুন যানবাহন ঈদ উপলক্ষে আসায় এই অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে।

তিনি আরও জানান, অসংখ্য পুরনো গাড়ি এই রুটে আসে।তার মধ্যে অনেকগুলো গাড়ি রাস্তার মধ্যে বিকল হয়ে যানবাহনের লম্বা লাইন পরেছে।

jugantor
print

LEAVE A REPLY