কাশ্মীরের আটক নেতাদের মুক্তির দাবি ভারতের বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলোর

কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বাতিলের পর রাজ্যটির সাবেক দুই মুখ্যমন্ত্রীসহ শতশত রাজনৈতিক নেতা-কর্মীর মুক্তির দাবি জানিয়েছে কংগ্রেসসহ ভারতের ৯টি বিরোধী রাজনৈতিক দল। বৃহস্পতিবার দিল্লির যন্ত্ররমন্তরে ডিএমকের ডাকে যোগ দেয় কংগ্রেস, তৃণমূল ও সিপিএম, সিপিআই, এসপি, আরজেডি, ন্যাশনাল কনফারেন্স ও এমডিএমকে। দ্য হিন্দু, টাইমস অব ইন্ডিয়া

যৌথ বিবৃতিতে বিরোধী দলগুলো কাশ্মীরের জনগণ ও তাদের প্রতিনিধিদের সঙ্গে আলোচনা ব্যতিত বিশেষ মর্যাদা বাতিল ও রাজ্যে অঘোষিত জরুরি অবস্থা জারির প্রতিবাদ জানায়। বিবৃতিতে বলা হয়, কেন্দ্রীয় সরকার বাক স্বাধীনতা ও সমাবেশের অধিকার নিয়ে তামাশা করছে। এই কঠিন সময়ে আমরা জম্মু ও কাশ্মীরের জনগণের পাশে আছি। কাশ্মীরকে সম্পূর্ণ যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন করে রাখা, সাবেক দুই মুখ্যমন্ত্রী ও রাজনৈতিক নেতাসহ সুশীল সমাজ ও সাধারণ নাগরিকদের আটক ভয়াবহ উদ্বেগের কারণ। এটি ভারতের সংবিধানের পরিপন্থী। আমরা অতিসত্ত¡র সব রাজনৈতিক দলের নেতা ও নিরপরাধ নাগরিকদের মুক্তির দাবি জানাচ্ছি।

কাশ্মীরের প্রতি সংহতি জানিয়ে রাজনৈতিক দলগুলোর এই বিক্ষোভে কংগ্রেসের প্রতিনিধি হয়ে যোগ দেন কংগ্রেস নেতা গোলাম নবী আজাদ, সিপিএম এর সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইয়াচুরি, সিপিআইএর সাধারণ সচিব ডি রাজা, সমাজবাদী পার্টির নেতা রামগোপাল যাদব, লোকতান্ত্রিক জনতাল দলের শরদ যাদব, আরজেডি এর মানোস জা ও টিএমসির দিনেশ ত্রিবেদী। গোলাম নবী আজাদ বলেন, ‘এটি গণতন্ত্র না। আমরা যদি এটি বুঝতে ব্যর্থ হই তবে বুঝতে হবে আমরা বোকার স্বর্গে বাস করছি। কাশ্মীরের পরিস্থিতি সরকার পুরোপুরি চাপা দিতে চাইছে। সেখানে সত্য প্রচারে কোন গণমাধ্যমকে অনুমতি দেয়া হচ্ছে না।’

print

LEAVE A REPLY