ক্লাসে ছাত্রীকে জড়িয়ে ধরে চুমু, ক্যাম্পাসে শিক্ষক গ্রেফতার!

নাটোর সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে যৌন হয়রানীর অভিযোগে ক্রীড়া শিক্ষক আব্দুল হাকিম (৩৯) কে স্কুল ক্যাম্পাস থেকে সোমবার দুপুরে আটক করেছে নাটোর থানা পুলিশ।

নাটোর সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক আব্দুল মতিন শিক্ষক আটকের সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, রোববার বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণীর এক ছাত্রীর অভিভাবক এসে ক্রীড়া শিক্ষক আব্দুল হাকিম তার মেয়েকে জড়িয়ে ধরে চুমু খেয়েছে বলে মৌখিক ভাবে অভিযোগ করেন।

তিনি ঐ অভিভাবককে সোমবার বিদ্যালয়ে আসতে বলেন এবং সোমবার দুপুর ১২টার দিকে বিষয়টি নিয়ে মিটিং এ বসেন। এ সময় বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক নাজনীন আক্তারকে আহবায়ক এবং সহকারী শিক্ষক আঞ্জুমান আরা ও আব্দুল মোতালেবকে সদস্য করে তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেন। তিন দিনের মধ্যে তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিলের জন্য সুপারিশ করেন।

এদিকে ছাত্রীর অভিভাবক আগেই এ ব্যাপারে নাটোর থানায় মামলা দায়ের করায়  দুপুর আড়াইটার দিকে পুলিশ নাটোর সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ক্রীড়া শিক্ষক আব্দুল হাকিমকে স্কুল ক্যাম্পাস থেকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে। তিন সন্তানের জনক ক্রীড়া শিক্ষক আব্দুল হাকিম রাজশাহীর চারঘাট থানার কাকাইলকাঠি গ্রামের আব্দুল জব্বারের ছেলে। তার বিরুদ্ধে আগেও এ ধরনের অভিযোগ ছিল।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক অভিভাবক জানান, ক্রীড়া শিক্ষক আব্দুল হাকিম বিভিন্ন সময়ে নিজ হাতে বিদ্যালয়ের প্রাথমিক শাখার ছাত্রীদের অনেকের গায়ের কাপড় তুলে ধরে পরনে কি ধরনের পোশাক পড়েছে তা দেখে বির্তক তৈরী করেন। তাকে অন্যত্র বদলী করা হলেও সম্প্রতি প্রভাব খাটিয়ে তিনি আবার নাটোর সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে ফিরে এসে যোগদান করেন।

সোমবার সন্ধ্যায় নাটোর থানার ওসি মো. জালাল উদ্দিন যৌন হয়রানীর অভিযোগে নাটোর সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ক্রীড়া শিক্ষক আব্দুল হাকিমকে স্কুল ক্যাম্পাস থেকে আটক করার কথা স্বীকার করে জানান, তার বিরুদ্ধে এক ছাত্রীর অভিভাবক নিয়মিত মামলা দায়ের করায় তাকে আটক করা হয়েছে।

print

LEAVE A REPLY