সিলেট: যুবলীগ কর্মীদের ছুরিকাঘাতে স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা গুরুতর আহত

সিলেট সদর উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের আহবায়ক মো. শাহজাহানকে ছুরিকাঘাত করে মারাত্মক আহত করেছেন একই জেলার যুবলীগ কর্মীরা।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, রোববার বিকেলে সিলেট সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত হয়। সন্ধ্যা ছয়টার দিকে হোটেল পলাশে অনুষ্ঠিত হওয়া এ সভায় যোগদান শেষে বের হওয়ার পর শাহজাহানের উপর অতর্কিত হামলা চালানো হয়।

এ ব্যাপারে সিলেট মহানগর পুলিশের এয়ারপোর্ট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এস এম শাহাদাত হোসেন দলীয় সূত্রের বরাত দিয়ে বলেন, রোববার বিকালে আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভা শেষে শাহজাহানের সঙ্গে বাকবিতণ্ডায় জড়িয়ে পড়ে যুবলীগ কর্মীরা।

তিনি জানান, এ সময় ৭-৮ জন হামলাকারী ছুরি দিয়ে তার শরীরের বিভিন্নস্থানে উপর্যুপরি হামলা চালিয়ে পালিয়ে যায়।

স্থানীয়রা বলছেন, শাহজাহানকে ছুরিকাঘাত করলে তিনি মাটিতে লুটিয়ে পড়েন। এরপর তাকে আশংকাজনক অবস্থায় উদ্ধার করে দ্রুত সিলেট এমএজি ওসমানী হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। শাহজাহানকে সেখানে জরুরীভিত্তিতে অস্ত্রোপচার করা হয়। ঘটনা পরবর্তী সুনামগঞ্জ-সিলেট মহাসড়ক অবরোধ করেন স্বেচ্ছাসেবক লীগ কর্মীরা। সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ ঘটনাস্থলে গিয়ে বিষয়টি নিয়ন্ত্রণে নিয়ে আসেন।

এয়ারপোর্ট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এস এম শাহাদাত হোসেন বলছেন, আসামিদের ধরতে আমরা অভিযান শুরু করেছি। শিগগির তাদের ধরতে পারবেন বলেও তিনি জানান।

সিলেট জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি আফসার আজিজ হামলার বিষয়টি নিশ্চিত করলেও কারা এবং কেন এ হামলার ঘটনা ঘটেছে তা জানাতে পারেননি।

সিলেট সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী ও বর্তমান প্রচার সম্পাদক মকসুদ আহমদ মকসুদ এ ঘটনাটি খুবই নিন্দনীয় উল্লেখ করে যুগান্তরকে বলেন, সদর উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের আহবায়ক শাহজাহানের উপর হামলার ঘটনা ঘটেছে। তবে কে বা কারা এই হামলা করেছে তা তাৎক্ষণিক জানা যায়নি। শাহজাহান বর্তমানে ওসমানী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

এদিকে, মো. শাহজাহানের উপর হামলার খবর পেয়ে রোববার রাতে ওসমানী হাসপাতালে তাকে দেখতে যান সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শফিকুর রহমান চৌধুরী, সিলেট জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি আফসার আজিজ, সাধারণ সম্পাদক দেবাংশু দাস মিঠুসহ আওয়ামী লীগ ও স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতৃবৃন্দ।

jugantor

print

LEAVE A REPLY