প্রধান বিচারপতি হেসে বললেন, আমারও কাঁপাকাঁপি শুরু হয়েছে

জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলায় বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার জামিন আবেদনের শুনানির শুরুতে খালেদা জিয়ার আইনজীবী জয়নুল আবেদীন বলেন, ‘মাই লর্ড, কোর্টে এসে পুলিশের তল্লাশি, নিরাপত্তা দেখে আমার কাঁপাকাঁপি শুরু হয়ে গেছে।’

জবাবে প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনও হাসতে হাসতে বলেন, ‘আমারও তো কাঁপাকাঁপি শুরু হয়ে গেছে। আপনারা সুপ্রিম কোর্টের সামনের গেটে এসে রাস্তা বন্ধ করে দিয়েছেন, ভাঙচুর করেছেন, মিছিল-সমাবেশ করেছেন।’

পরে জবাবে আইনজীবী জয়নুল আবেদীন বলেন, ‘এটা রাজনৈতিক বিষয়। মাঠে-ময়দানের বিষয় এখানে আনা ঠিক হবে না। মাঠে-ময়দানের বিষয় মাঠেই থাকুক।’

এরপর জামিনের ওপর শুনানি শুরু করেন বিচারকরা। এর আগে খালেদা জিয়ার জামিনের শুনানিকে কেন্দ্র করে সুপ্রিম কোর্টে নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়।

সুপ্রিম কোর্টের প্রতিটি প্রবেশপথ ও আদালত চত্বরের ভেতরে বিভিন্ন স্থানে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর অতিরিক্ত সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে। এ ছাড়া আর্চওয়ে এবং মেটাল ডিটেক্টর দিয়ে তল্লাশি করে আইনজীবী, বিচারপ্রার্থী, সাংবাদিকসহ সংশ্লিষ্টদের আদালত চত্বরে প্রবেশ করানো হয়। সাধারণ মানুষকে প্রবেশে বাধা দেওয়া হয়। মামলার আইনজীবী ও বিচারপ্রার্থী অনেকেই ভোগান্তিতে পড়েন।

গত মঙ্গলবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবের দিক থেকে আসা বিএনপির নেতাকর্মীরা খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে হঠাৎ সুপ্রিম কোর্টের সামনের সড়কে অবস্থান নেন। তখন সুপ্রিম কোর্টের সব ফটক বন্ধ করে দেওয়া হয়।

পরে পুলিশ নেতাকর্মীদের সরিয়ে দিতে লাঠিপেটা ও কাঁদানে গ্যাসের শেল নিক্ষেপ করে। পুলিশের ধাওয়ায় বিএনপির নেতাকর্মীরা যাওয়ার সময় রাস্তায় বেশ কয়েকটি গাড়ি ভাঙচুরের ঘটনা ঘটে।

উৎসঃ   এনটিভি
print

LEAVE A REPLY