ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান অবৈধ, শিগগিরই ব্যবস্থা: এরশাদ

arsadরওশন এরশাদকে জাতীয় পার্টির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান করা সম্পূর্ণ অবৈধ বলে মন্তব্য করেছেন দলটির চেয়ারম্যান এইচ এম এরশাদ। তিনি বলেছেন, যাঁরা এই কাজটি করেছেন, দলের শৃঙ্খলা ভেঙেছেন, তাঁদের বিরুদ্ধে শিগগিরই ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
তাঁর স্ত্রী রওশন এরশাদকে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান করার পরিপ্রেক্ষিতে আজ রাতে রংপুরে একটি হোটেলে সংবাদ সম্মেলনে এরশাদ এ কথা বলেন। তিনি বলেন, ‘আমি দলের চেয়ারম্যান। আমি সভা ডাকব। আমার অনুপস্থিতিতে সভা ডেকে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান করাটা সম্পূর্ণ অবৈধ।’
এরশাদ তাঁর ভাই জি এম কাদেরকে জাতীয় পার্টির (জাপা) কো-চেয়ারম্যান ঘোষণা করার এক দিনের মাথায় আজ সোমবার রাতে দলের একটি অংশ এরশাদের স্ত্রী রওশন এরশাদকে পার্টির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান ঘোষণা করে।
এরশাদ বলেন, ‘তিনি (রওশন এরশাদ) বিরোধীদলীয় নেত্রী। তিনি পার্টির বিষয়ে এই মুহূর্তে কিছু করতে পারেন না। আমি যে সিদ্ধান্ত নিয়েছি, সেটি সঠিক। দলের বিরুদ্ধে যে একটা ষড়যন্ত্র চলছে, সেটাতো তোমরা সবাই বুঝতে পারছ।’
আজ রাতে গুলশানে রওশনের বাসায় একটি বৈঠক শেষে জাপার মহাসচিব জিয়াউদ্দিন আহম্মেদ বাবলু সাংবাদিকদের বলেন, রওশন এরশাদ এখন দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান। এর আগে গতকাল রোববার সন্ধ্যায় রংপুরে এরশাদ তাঁর ভাই কাদেরকে দলের কো-চেয়ারম্যান ঘোষণা করেন।

সংবাদ সম্মেলনে এরশাদ বলেন, গঠনতন্ত্র অনুযায়ী চেয়ারম্যানের অনুমতি না নিয়ে প্রেসিডিয়ামের কোনো সভা কেউ ডাকতে পারে না। এটা অবৈধ। গঠনতন্ত্রের পরিপন্থী যাঁরাই এই ষড়যন্ত্রমূলক কাজটি করেছেন, তাঁদের বিরুদ্ধে দলীয় শৃঙ্খলাভঙ্গের অভিযোগে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এই মুহূর্তে কোনো ব্যবস্থা নেওয়া হবে কি না, জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘আমি ভাবছি। গঠনতন্ত্র অনুযায়ী খুব শিগগিরই ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’
সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত সদ্য ঘোষিত দলের কো-চেয়ারম্যান জি এম কাদের বলেন, ‘গঠনতন্ত্র অনুযায়ী চেয়ারম্যানের বাইরে জাতীয় পার্টির কেউ কোনো সিদ্ধান্ত নিতে পারেন না। চেয়ারম্যান আমাকে যে দায়িত্ব দিয়েছেন, আমি সেই দায়িত্ব পালন করব। বর্তমান রাজনৈতিক প্রেক্ষাপটে আমাদের দলকে নিয়ে একটি ষড়যন্ত্র চলছে। দলকে বিভক্ত করার চেষ্টা চলছে। আমরা শক্ত হাতে বিষয়টি মোকাবিলা করব।’

print

LEAVE A REPLY