বুলগেরিয়া সফর না বিশ্বনেতাদের চাপকে এড়িয়ে যাওয়ার চেষ্টা শেখ হাসিনার

hasinaআলম হোসেন: বিদেশ সফরের নাম করে বাংলাদেশের অবৈধ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অপ্রয়োজনীয় ও কম গুরুত্বপূর্ণ সফরের অজুহাতে তিনি বিদেশ সফরে আছেন। কোনো গ্রহণযোগ্য কারন ছাড়াই শেখ হাসিনা সাত দিন যাবৎ দেশ ছেড়ে লন্ডন ও বুলগেরিয়াতে ঘুরে বেড়াচ্ছেন।[ads1]
দেশের সঙ্কটময় অবস্থায় সব রাজনৈতিক দলের সাথে সংলাপে না বসে বাংলাদেশের অবৈধ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার লন্ডন ও বুলগেরিয়ার সফর নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে কূটনৈতিক মহলে। কূটনৈতিক সূত্রগুলো বলছে, যেখানে প্রধানমন্ত্রী ওআইসির মতো গুরুত্বপূর্ণ অনুষ্ঠানে যোগ না দিয়ে রাষ্ট্রীয় কাজের অজুহাতে, সেই তিনিই বিভিন্ন হত্যাকাণ্ডের পর নাজুক অবস্থায় থাকা দেশ ছেড়ে ব্যক্তিগত সফরের নামে ২ দিন লন্ডনে এবং বুলগেরিয়ায় ৩ দিন বসে আছেন। প্রধানমন্ত্রী উক্ত সফরের কোন গুরুত্ব জাতির সামনে তুলে ধরতে পারেননি। সূত্রগুলো বলছে, বুলগেরিয়ার রাজধানী সোফিয়াতে শেখ হাসিনা গেছেন যে কনফারেন্সের নামে, সেটা আসলে বি-গ্রেডের একটা বেসরকারি সম্মেলন। ওখানে কোনো দেশের প্রধানমন্ত্রী বা রাষ্ট্রপ্রধান তো যায়ই নি, বরং কোনো দেশের কেবিনেট মন্ত্রী পর্যায়ের কেউ নাই। মূলত এনজিও কর্মী, হোটেলে ম্যানেজার, স্থানীয় মহিলা রাজনীতিক, কিছু শিক্ষক ও বিভিন্ন পেশার নারীরা থাকবেন।[ads2]
এমনই এক কনফারেন্সে ঘটা করে যোগ দিতে গেছেন বাংলাদেশের অবৈধ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আশ্চর্যের বিষয় হচ্ছে, তাও আবার আমন্ত্রিত অতিথিদের নামের তালিকায় ইউনেস্কোর পরিচালক এবং মোবাইল ফোন কোম্পানি সিমেন্সের বুলগেরিয়া প্রধানের নামের পরে রয়েছে শেখ হাসিনার নাম। একজন সরকার প্রধানের নামের আগে অতিথি তালিকায় একটি কোম্পানির কান্ট্রি চিফের নাম ওই সরকার প্রধানের জন্য অপমানজনকই বটে।
 [ads1]
আরেকটি অবাক করা তথ্য হচ্ছে, যে কোন নারী চাইলে আয়োজকদের ওয়েবসাইটে ৩০ হাজার টাকা ফী দিয়ে অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে যোগ দিতে পারবেন! তো বাস্তব সত্য সম্মেলনে যোগ দিয়ে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর পদটাকে কি তিনি অবমূল্যায়ন করে আসলেন। অবৈধ ক্ষমতা টিকিয়ে রাখতে শেখ হাসিনা ভারতের নির্দেশে যারপরনাই নিম্নমানের আচরণ করছেন। বিশেষ করে ভারতবাদে বাকি প্রায় সব রাষ্ট্র বাংলাদেশের অবৈধ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে চাপের মধ্যে রেখেছে। মধ্যবর্তী নির্বাচনের মাধ্যমে জনগণের বৈধ সরকার গঠনে চাপ সৃষ্টি করা হয়েছে। নতুনভাবে যোগ হয়েছে পাকিস্তান ও তুরস্ক। শেখ হাসিনা এখন বিশ্বকে এড়িয়ে চলার নীতি অনুসরণ করছেন। যে কারণে গুরুত্বহীন সফরের নামে মূলত বিশ্বচাপকে এড়িয়ে যাবার চেষ্টা করছেন।
[ads2]
print

LEAVE A REPLY