নারায়ণগঞ্জে ৭ খুনের সঙ্গে ক্ষমতার আশ্রয়-প্রশ্রয় থাকতেই পারে: সুরঞ্জিত

suronjit-sen676_51398-400x250আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত নারায়ণগঞ্জে অপহরণের পর সাত খুনের ঘটনায় আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর ভূমিকার তীব্র সমালোচনা করেছেন।

 আজ (সোমবার) দুপুরে রাজধানীর ইনস্টিটিউশন অব ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স মিলনায়তনে নৌকা সমর্থক গোষ্ঠীর আলোচনা সভায় তিনি বলেন, “শাক দিয়ে মাছ ঢাকা যায় না, নারায়ণগঞ্জের ঘটনা তা-ই প্রমাণ করে। এ ঘটনার সঙ্গে ক্ষমতার আশ্রয়-প্রশ্রয় থাকতেই পারে। ঘটনার সাত দিন পর আপনি অপরাধীর বাড়ি গিয়ে অভিযান চালিয়েছেন। কেন এর আগে চালানো হয়নি? মানুষ অভিযোগ নিয়ে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কাছে যাচ্ছে। তারা বসে বসে হিসাব করেন কার অভিযোগ নেবেন কি নেবেন না। এটা কি মগের মুল্লুক? এটা আইনের বরখেলাপ।”

নারায়ণগঞ্জের ঘটনায় র‍্যাবের সম্পৃক্ততার অভিযোগ সম্পর্কে সাবেক মন্ত্রী সুরঞ্জিত বলেন, “নিরাপত্তা বাহিনীর বিরুদ্ধে অভিযোগ এসেছে। আমি বলব, অল্প সময়ে এর সঙ্গে যারা জড়িত রয়েছে, তাদের খুঁজে বের করে শাস্তি না দিলে সেটা আইনের বরখেলাপ হবে। এই অপরাধে যাদের প্রত্যাহার করেছেন, এদের প্রত্যেকের বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা হওয়া উচিত।”

 এদিকে, দেশের আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ে চরম উদ্বেগ প্রকাশ করে জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান ড. মিজানুর রহমান অপহরণ, গুম, হত্যা বন্ধে সরকার দ্রুত পদক্ষেপ না নিলে প্রয়োজনে আইনের আশ্রয় নেবেন বলে জানিয়েছেন। রাজধানীর সিরডাপ মিলনায়তনে আয়োজিত গোলটেবিল বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের এ কথা বলেন তিনি।

সম্প্রতি নারায়ণগঞ্জসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে গুম, হত্যা, অপহরণের ঘটনার কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, দেশের মানুষ আতঙ্কে রয়েছেন।

এ পরিস্থিতি থেকে দ্রুত উত্তরণ ঘটাতে না পারলে অপরাধের মাত্রা আরো বেড়ে যেতে পারে বলেও আশঙ্কা প্রকাশ করেন তিনি।

অপরাধ শনাক্তের পাশাপাশি আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা এর সঙ্গে জড়িত কিনা তা খুঁজে বের করে কঠোর শাস্তির সুপারিশও করেন তিনি। আর এ ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রীর সরাসরি হস্তক্ষেপও কামনা করেন মানবাধিকার কমিশন চেয়ারম্যান।

print

LEAVE A REPLY