রাশিয়ার বিরুদ্ধে আরো নিষেধজ্ঞার হুমকি দিল জি- ৭

G7ঢাকা: পশ্চিমা বিশ্বের শিল্পোন্নত দেশগুলোর গ্রুপ জি- সেভেন ইউক্রেনের ঘটনায় রাশিয়ার ওপর আরো নিষেধাজ্ঞা আনার প্রস্তুতি নিচ্ছে। বুধবার ব্রাসেলসে এক বৈঠকে গ্রুপের সদস্যরা বলেছে, রাশিয়া যদি পূর্ব ইউক্রেনে অস্থিতিশীলতা বাড়াতে থাকে তাহলে তারাও এ বিষয়ে কঠোর সিদ্ধান্ত নেবে।
বুধবার এক যৌথ বিবৃতিতে জি- সেভেনের নেতারা বলেছেন, রাশিয়ার কার্যক্রম অগ্রহণযোগ্য এবং এটাকে থামাতে হবে।গত মার্চ মাসে জি -এইট গ্রুপ থেকে রাশিয়াকে বহিষ্কার করার পর জি-সেভেন নেতাদের এটিই প্রথম সম্মেলন ।
পূর্ব ইউক্রেনে রুশপন্থি বিদ্রোহী ও ইউক্রেনের সরকারের মধ্যে তীব্র যুদ্ধ চলতে থাকায় পশ্চিমা বিশ্বের নেতারা রাশিয়ার ব্যাপারে নতুন করে নিষেধাজ্ঞা আরোপের সিদ্ধান্ত জানিয়েছেন। জার্মান চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মেরকেল বলেছেন, পরিস্থিতি শান্ত করতে রাশিয়া যদি ব্যবস্থা না নেয় তাহলে তাদেরকে জি-সেভেনের নেওয়া পরবর্তী পদক্ষেপ মোকাবেলা করতে হবে।
তিনি আরো বলেন,‘আমরা আমাদের বিবৃতিতে পরিষ্কার করে বলেছি আমরা তিনটি পদক্ষেপ অব্যাহত রাখতে চাই। ইউক্রেনেকে আর্থিকভাবে সাহায্য করা, যেসব বিষয়ে সমাধানে আসা যায়নি সেসব বিষয়ে রাশিয়ার সাথে আলোচনা করা এবং নিষেধাজ্ঞা-একটা কঠিন নিষেধাজ্ঞা আসতে যাচ্ছে রাশিয়ার বিরুদ্ধে। আমরা ইউক্রেনের অস্থিরতা আর মেনে নিতে পারি না।’
এর আগে যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরুন আশা প্রকাশ করে বলেছিলেন, জি-সেভেনের নেতারা ইউক্রেনকে সমর্থন করে একটি স্পষ্ট বিবৃতি দেবেন।
এদিকে ইউরোপীয় কমিশনের প্রেসিডেন্ট জোসে ম্যানুয়েল বারোসে বিবিসিকে বলেছেন রাশিয়া ও জি-সেভেনের মধ্যে আলোচনার দরজা খুলে রাখা খুব জরুরি। তিনি বলেন,‘আমি মনে করি এটা খুব শক্তিশালী সিদ্ধান্ত যে আমরা ভ্লাদিমির পুতিনের রাশিয়াকে জি-এইটের  বৈধ সদস্য হিসেবে মেনে নিতে পারি না। কিন্তু অবশ্যই আমরা তার সাথে আলোচনার পথ খোলা রাখছি।’
এর আগে ইউক্রেন প্রসঙ্গে রাশিয়ার গৃহীত পদক্ষেপের কারণে রাশিয়ার ওপর আস্থায় যে চিড় ধরেছে তা পুনরুদ্ধারের জন্য ভ্লাদিমির পুতিনকে পদক্ষেপ গ্রহণের জন্য তাগাদা দিয়েছিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা। মঙ্গলবার পোল্যান্ড সফরের সময় এ মন্তব্য করেছিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট।
এদিকে গত ২৪ ঘণ্টায় পূর্ব ইউক্রেনের বিদ্রোহী অধ্যুষিত এলাকায় অন্তত ৩শ’ জনকে হত্যা করা হয়েছে বলে দাবি করেছে ইউক্রেন। তবে রুশপন্থী বিদ্রোহীরা হতাহতের এ খবর নাকচ করেছেন। তারা সরকারি বাহিনীর বিরুদ্ধে জোরালো প্রতিরোধ গড়ে তোলারও ঘোষণা দিয়েছেন।
print

LEAVE A REPLY