শ্রীপুরে বাবা-মেয়ের আত্মহত্যা: আরেক আসামি গ্রেফতার

গাজীপুরের শ্রীপুরে ট্রেনের নিচে ঝাঁপ দিয়ে বাবা-মেয়ের আত্মহত্যার মামলায় ৬ নম্বর আসামি ফাইজুদ্দিনকে (৫০) গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

শনিবার ভোরে তাকে নরসিংদীর শিবপুর উপজেলার কানাউটা এলাকা থেকে গ্রেফতার করা হয়। আসামি ফাইজুদ্দিন শ্রীপুর উপজেলার গোসিংগা ইউনিয়নের কর্ণপুর (সীটপাড়া) গ্রামের বাসিন্দা ও মৃত হাছেন আলীর ছেলে।

শ্রীপুর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই ) শহিদুল ইসলাম মোল্লাহ জানান, ঘটনার পর থেকে ফাইজুদ্দিন বিভিন্ন স্থানে আত্মগোপনে ছিলেন।

উন্নত প্রযুক্তি ব্যবহার করে শনিবার ভোরে নরসিংদীর শিবপুর উপজেলার কানাউটা গ্রামের হানিফ মিয়ার বাড়িতে অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করা হয়। তিনি এ মামলার ৬ নম্বর আসামি। এ মামলায় এ পর্যন্ত প্রধান আসামিসহ পাচঁজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

উল্লেখ্য, গত ২৯ এপ্রিল শ্রীপুর রেলওয়ে স্টেশন এলাকায় পালিত মেয়ে আয়েশা আক্তারকে (৮) নিয়ে ট্রেনের নিচে ঝাঁপ দিয়ে শ্রীপুরের সিটপাড়া গ্রামের দিনমজুর হয়রত আলী (৪০) আত্মহত্যা করেন।

হযরত আলীর স্ত্রী হালিমা বেগমের অভিযোগ- তার মেয়েকে বাড়ির থেকে তুলে নিয়ে ধর্ষণের চেষ্টা করে স্থানীয় বখাটে ফারুক। এলাকার মানুষ টের পেয়ে ওই মেয়েকে রক্ষা করেন।

এ ঘটনা স্থানীয় ইউপি সদস্য ও থানা পুলিশকে জানিয়ে প্রতিকার না পেয়ে মেয়েকে নিয়ে ট্রেনের নিচে ঝাঁপ দিয়ে আত্মহত্যা করেন হয়রত আলী। পরে এ ঘটনায় নিহত হযরত আলীর স্ত্রী হালিমা বেগম বাদী হয়ে সাতজনের নাম উল্লেখ করে ঢাকার কমলাপুর রেলওয়ে থানায় মামলা করেন।

print

LEAVE A REPLY