জঙ্গি আস্তানার অভিযানে বম্ব ডিসপোজাল, ডগ স্কোয়াড

রাজধানীর মিরপুরের দারুস সালামের জঙ্গি আস্তানার অভিযানে ফায়ার সার্ভিসের সঙ্গে যোগ দিয়েছে র‌্যাবের বম্ব ডিসপোজাল ইউনিট ও ডগ স্কোয়াড। আজ বুধবার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে আস্তানার পাশে সংবাদ সম্মেলনে এ কথা জানান র‌্যাবের লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইংয়ের পরিচালক কমান্ডার মুফতি মাহমুদ খান। তিনি বলেন, মঙ্গলবার রাতে স্থগিত হওয়া অভিযান কিছুক্ষণ আগে আমরা শুরু করেছি। গতকাল বিস্ফোরণে সৃষ্ট অগ্নিকাণ্ড এখন না থাকলেও কিছু কিছু স্থানে ধোঁয়া দেখা গেছে। এখন ফায়ার সার্ভিসের সঙ্গে র‌্যাবের বম্ব ডিসপোজাল ইউনিট ও ডগ স্কোয়াড কাজ শুরু করেছে। নিয়মানুযায়ী পরবর্তী পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

তিনি আরো বলেন, ভেতরে হতাহতের বিষয়ে এখনো কোনো ধারণা পাওয়া যায়নি। অভিযানিক দল নিশ্চিত করলে গণমাধ্যমকর্মীদের জানানো হবে। বিস্ফোরণের পরে আস্তানায় অবস্থানরতদের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করেছিলেন কি-না জানতে চাইলে তিনি বলেন, গতকাল সকাল থেকেই আমরা ভেতরের জঙ্গিদের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করি, বিভিন্ন সময় ভেতর থেকে আমাদের সঙ্গে কথাও বলেছে। জঙ্গিরা আত্মসমর্পণের জন্য রাজি হয়ে নির্ধারিত সময়ও দেয়। পরে আত্মসমর্পণ না করে রাত পৌনে ১০টার দিকে অনেকগুলো বিস্ফোরণ ঘটায়।

পরে আস্তানার ভেতর থেকে আর সাড়া পাওয়া যায়নি।

বিস্ফোরণে ক্ষতি প্রসঙ্গে তিনি বলেন, অগ্নিকাণ্ডের কারণে ফ্ল্যাটের বিভিন্ন স্থান কালো হয়ে গেছে। তবে একটি দেয়াল আংশিক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে, যা বাইরে থেকে দেখা যাচ্ছে। ভেতরের অবস্থা সম্পর্কে এখনো জানা যায়নি। এদিকে, বুধবার (০৬ সেপ্টেম্বর) সকালে আস্তানার আশপাশের ভবনে র‌্যাব সদস্যদের অস্ত্র হাতে অবস্থান করতে দেখা গেছে। যথারীতি পুরো এলাকা কর্ডন করে রেখেছে র‌্যাব। এর আগে সকালে জঙ্গি আস্তানায় ফায়ার সার্ভিসের তিনটি ইউনিট প্রবেশ করে।

ঘটনাস্থল থেকে ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্স অধিদপ্তরের ঢাকা বিভাগের উপপরিচালক দেবাশীষ বর্ধন বলেন, মঙ্গলবার রাত পৌনে ১০টার দিকে জঙ্গি আস্তানায় বিস্ফোরণের কারণে যে অগ্নিকাণ্ড হয়েছিল তা আড়াই থেকে তিন ঘণ্টার মধ্যে আমরা নিয়ন্ত্রণে আনি। কিন্তু তখন আস্তানায় আরো বিস্ফোরক ছিল কি-না নিশ্চিত না হওয়ায় আমরা ভেতরে প্রবেশ করিনি। ওই সময় অভিযান স্থগিত করা হয়। কিন্তু গভীর রাতে ফের বিস্ফোরণের শব্দ পাওয়া যায় জঙ্গি আস্তানায়। পরে বাড়িটি ঘিরে রাখে র‌্যাব সদস্যরা।

print

LEAVE A REPLY