মুখ খুললেন ‘ভুয়া ব্যারিস্টার’ পারভেজ

পেশাগত অসদাচরণের দায়ে আইন পেশা থেকে স্থায়ীভাবে অপসারিত ঢাকা বারের সদস্য অ্যাডভোকেট পারভেজ আহমেদ ফেসবুক পেজে একটি স্ট্যাটাস দিয়েছেন।তিনি নিজেকে নির্দোষ দাবি করে মঙ্গলবার বিকালে নিজের ফেসবুক পেজে ওই স্ট্যাটাস দেন।
তার স্ট্যাটাসটি হুবহু পাঠকদের জন্য তুলে ধরা হলো-
প্রিয় ভাই-বোন, বন্ধু-বান্ধবী, শুভানুধ্যায়ী, সবার প্রতি সালাম ও শুভেচ্ছা। আমি ব্যারিস্টার পারভেজ আহমেদ। বিভিন্ন গণমাধ্যমে টক-শো ও জাতীয়তাবাদের পক্ষে বিভিন্নভাবে দলীয় কার্যক্রম করে আসছি।
রাজনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক বিভিন্ন কার্যক্রমের ফলে আপনাদের সঙ্গে সম্পর্ক আর ভালোবাসায় আমি মুগ্ধ।
সোমবার বার কাউন্সিলের বরাত দিয়ে বিভিন্ন গণমাধ্যমে আমার বিরুদ্ধে অভিযোগ তোলা হয়েছে! এর আগে আরও অনেক বিজ্ঞ আইনজীবীকে এমন আচরণের সম্মুখীন হতে হয়েছে।
বর্তমান ক্ষীণ মানসিকতা, মৃতপ্রায় গণতন্ত্র, বিদ্বেষপূর্ণ আচরণের শিকার আমি! ইনশাল্লাহ অবিলম্বে আমি আমার প্রমাণাদি, সত্যতা, যাচাই-বাছাইয়ের জন্য উচ্চ আদালতের কাছে পেশ করব এবং আমি শতভাগ আশাবাদী আমার বার কাউন্সিলের দেয়া নোটিশের পূর্ণ জবাব দিতে আমি সফলকাম হব!
গণতন্ত্র হোক উজ্জীবিত, মিথ্যা হোক ভুলুণ্ঠিত এ আশাবাদ ব্যক্ত করে আপনাদের কাছে দোয়া চেয়ে আবারও সুন্দরভাবে আপনাদের মাঝে ফেরার প্রত্যয় ব্যক্ত করছি। সবাইকে ধন্যবাদ। বাংলাদেশ জিন্দাবাদ।
উল্লেখ্য, সোমবার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বাংলাদেশ বার কাউন্সিল ট্রাইব্যুনালের বেঞ্চ অফিসার কামনাশীষ রায় জানান, পেশাগত অসদাচরণের দায়ে ঢাকা বারের সদস্য অ্যাডভোকেট পারভেজ আহমেদকে আইন পেশা থেকে স্থায়ীভাবে অপসারণ করেছে বাংলাদেশ বার কাউন্সিল।
পারভেজ আহমেদের বিরুদ্ধে এ ব্যাপারে অভিযোগ করেন সুপ্রিমকোর্টের আইনজীবী ব্যারিস্টার এম সারোয়ার হোসেন।
তার অভিযোগ ছিল, পারভেজ আহমেদ নিজেকে ব্যারিস্টার ও সুপ্রিমকোর্টের আইনজীবীর মিথ্যা পরিচয় দিয়ে দেশের বিভিন্ন টিভি চ্যানেলে টকশো’তে অংশ নিয়ে জনসাধারণকে প্রতারিত করছেন। ৭১ টিভি, ইটিভি, জিটিভি, আরটিভি এবং দীপ্ত টিভিতে টকশো’তে অংশ নিচ্ছেন তিনি।পারভেজ ভুয়া পরিচয়ে টকশোতে অংশ নিয়ে পেশাগত অসদাচরণ করেছেন বলেও অভিযোগে উল্লেখ করা হয়।

ভুয়া ব্যারিস্টার পরিচয়ে টকশোতে, আইন পেশা থেকে বহিষ্কার
নিজেকে ব্যারিস্টার ও সুপ্রিমকোর্টের আইনজীবী হিসেবে পরিচয় দিয়ে বিভিন্ন টেলিভিশন টক-শোতে অংশ নিয়ে প্রতারণার অভিযোগে আইন পেশা থেকেই বহিষ্কার হলেন অ্যাডভোকেট পারভেজ আহমেদ।
গত ২১ অক্টোবর ঢাকা আইনজীবী সমিতির ওই সদস্যকে আইন পেশা থেকে স্থায়ীভাবে অপসারণের আদেশ দেন বাংলাদেশ বার কাউন্সিলের একটি ট্রাইব্যুনালে। গতকাল সোমবার ওই তথ্য জানা গেছে।
বার কাউন্সিলের ১ নম্বর ট্রাইব্যুনালের চেয়ারম্যান মো. ইয়াহইয়া, সদস্য মো. পারভেজ আলম খান ও শেখ আখতারুল ইসলামের বেঞ্চ ওই বহিষ্কারের আদেশ দিয়েছেন।
জানা যায়, সুপ্রিমকোর্টের আইনজীবী ব্যারিস্টার এম সারোয়ার হোসেন বার কাউন্সিলের আইনজীবী পারভেজ আহমেদের বিরুদ্ধে ওই অভিযোগ করেন।
অভিযোগে বলা হয়, আইনজীবী পারভেজ নিজেকে ব্যারিস্টার ও সুপ্রিমকোর্টের আইনজীবী পরিচয় দিতেন। মিথ্যা ওই পরিচয় দিয়ে দেশের বিভিন্ন টেলিভিশন চ্যানেলে টক-শোতে অংশ নিয়ে জনসাধারণকে প্রতারিত করে আসছেন। তিনি শুধু মুখেই ভুয়া পরিচয় দিতেন না, ভিজিটিং কার্ডেও ব্যবহার করতেন। এভাবে জনসাধারণকে প্রতারিত করে গণমানুষের কাছে আইনজীবীদের ভাবমূর্তি নষ্ট করেছেন।

print

LEAVE A REPLY