মিরাজ ঘূর্ণিতে শুরুতেই সাজঘরে হাশিম আমলা

দুই ম্যাচের টি ২০ সিরিজের প্রথম ম্যাচে বাংলাদেশের বিপক্ষে টসে জিতে ব্যাটিং করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে স্বাগতিক দক্ষিণ আফ্রিকা।
বৃহস্পতিবার ব্লমফন্টেইনের মানগুয়াংওভালে ইনিংসের শুরুতেই দুর্দান্ত ফর্মে থাকা হাশিম আমলাকে বোল্ড করে সাজঘরে ফিরিয়ে দেন মিরাজ।  এ  রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত তিন ওভারে এক উইকেটে ২৬ রান সংগ্রহ করেছে স্বাগতিকরা।
এই সফরে প্রথমবারের মতো নৈশালোকে ফ্লাডলাইটের আলোয় খেলছে দু’দল।
টেস্ট সিরিজে ধবলধোলাই হওয়ার পর রঙিন পোশাকে ঘুরে দাঁড়িয়ে নতুন শুরুর স্বপ্ন দেখিয়েছিলেন ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফি মুর্তজা। কিন্তু সংস্করণ বদলালেও ভাগ্য বদলায়নি বাংলাদেশের। টেস্টের পর তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজেও হোয়াইটওয়াশের তিক্ত অভিজ্ঞতায় আশার বেলুনটা একেবারেই চুপসে গেছে।
হেরে চলা একটি দলকে উজ্জীবিত করার কঠিন পরীক্ষাটা এবার দিতে হবে সাকিব আল হাসানকে। কারণ দুই ম্যাচের টি ২০ সিরিজের নেতৃত্বের ব্যাটন যে তার হাতেই।
এই ম্যাচ দিয়েই নেতৃত্বের পুনরাভিষেক হতে যাচ্ছে বাংলাদেশের নতুন টি ২০ অধিনায়ক সাকিবের। গত এপ্রিলে শ্রীলংকা সিরিজ দিয়ে টি ২০ থেকে অবসর নেন মাশরাফি। এরপর টি ২০ দলের নেতৃত্ব তুলে দেয়া হয় বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিবের হাতে।
অভিজ্ঞতাটা অবশ্য তার জন্য নতুন নয়। অতীতে তিন ফরম্যাটেই বাংলাদেশকে নেতৃত্ব দিয়েছেন সাকিব। তবে টি ২০তে নেতৃত্বের অভিজ্ঞতাটা সুখকর নয় তার। আগের মেয়াদে সাকিবের অধিনায়কত্বে খেলা চারটি টি ২০-র সবগুলোতেই হেরেছে বাংলাদেশ।
এবার শুরুতেই সাকিবের সামনে কঠিনতম চ্যালেঞ্জ। দুঃস্বপ্নে পরিণত হওয়া এক সফরে পায়ের নিচে মাটি খুঁজে পাওয়ার অগ্নিপরীক্ষায় উতরাতে হলে অধিনায়কের মতো পুরো দলকেই দারুণ কিছু করে দেখাতে হবে।
তাত্ত্বিকভাবে ক্রিকেটের ক্ষুদে ফরম্যাটে ছোট-বড় দলে তেমন ব্যবধান না থাকলেও বাংলাদেশ এখনও টি ২০-র ভাষা ঠিক রপ্ত করতে পারেনি। এ বছর এই ফরম্যাটে পাঁচ ম্যাচের মাত্র একটিতে জয়। দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে আগের চারটি টি ২০-র সবগুলোতেই হার। তার ওপর চোট কেড়ে নিয়েছে দলের সেরা ব্যাটসম্যান তামিম ইকবাল ও সেরা বোলার মোস্তাফিজুর রহমানকে।
এত প্রতিকূলতার মধ্যে শুধু সাকিবই পারেন দলকে আলোর পথ দেখাতে। আইপিএল, সিপিএল, বিগব্যাশে খেলার সুবাদে টি ২০-র ভাষাটা তার অন্তত অজানা নয়। দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে টি ২০তে দলের পক্ষে সর্বোচ্চ রান, দ্বিতীয় সর্বোচ্চ উইকেট ও সবচেয়ে বেশি ক্যাচ সাকিবেরই। সতীর্থরা এগিয়ে এলে দৃঢ়তার পরীক্ষায় উতরে যাওয়াটা তার জন্য অসম্ভব কিছু নয়।
এদিকে, ইনজুরির দরুন দক্ষিণ আফ্রিকা পাচ্ছে না তাদের নিয়মিত অধিনায়ক ফাফ ডু প্লেসিকে। টি ২০তে স্বাগতিকদের নেতৃত্ব দেবেন জেপি ডুমিনি। পেস আক্রমণের তরুণ নেতা কাগিসো রাবাদাকে বিশ্রামে রেখে টি ২০তে নতুনদের সুযোগ দিয়েছেন প্রোটিয়া কোচ ওটিস গিবসন।
print

LEAVE A REPLY