স্বামীর জন্য ব্যথার ওষুধ এনে কারাগারে ব্রিটিশ নারী

ব্যথার ওষুধ পাচারের দায়ে সম্প্রতি এক ব্রিটিশ নারীকে তিন বছরের জেল দিয়েছেন মিসরের একটি আদালত।

একই সঙ্গে তাকে ৫ হাজার ৬১১ ডলার সমপরিমাণ মিসরীয় পাউন্ড জরিমানা করা হযেছে।

তবে ওই নারীর দাবি, ব্যথার ওষুধগুলো তিনি তার অসুস্থ স্বামীর জন্য এনেছিলেন।

সাজাপ্রাপ্ত ওই নারীর নাম লোরা প্লামার (৩৩)। গত ৯ অক্টোবর মিসরের হুরগাদা বিমানবন্দর থেকে তাকে আটক করা হয়। পরে পুলিশের দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে তার সুটকেস তল্লাশি করে ২৯০টি ব্যথানাশক ওষুধ পাওয়া যায়। এ ঘটনায় তার বিরুদ্ধে ওষুধ পাচারের অভিযোগ আনে পুলিশ।

প্লামার লন্ডনের পূর্ব ইয়র্কশায়ারের হাল শহরের একটি দোকানের সহকারী।

বিশ্বের বিভিন্ন দেশেই ব্যথানাশক ট্রামাডল ওষুধটি বৈধ। তবে মিসরে ব্যক্তি উদ্যোগে বিক্রি নিষিদ্ধ। নিম্নআয়ের মানুষের মধ্যে এই ওষুধ খুব জনপ্রিয়।

লোরা প্লামার আদালতে দাবি করেছেন, তিনি তার অসুস্থ মিসরীয় স্বামীর জন্য ওষুধগুলো লন্ডন থেকে এনেছিলেন। তার স্বামী ওমর আবদেল আজিম দীর্ঘদিন ধরে পিঠের ব্যথায় ভুগছেন।

পাঁচ বছর আগে আজিমের সঙ্গে প্লামারের পরিচয় হয়। এর পর ২০১৪ সালে নিবন্ধন ছাড়াই তারা বিয়ে করেন। মিসরে এ ধরনের বিয়েকে বলা হয় ‘উরফি বিয়ে’। এর পর থেকে প্লামার তার স্বামীকে দেখতে লন্ডন থেকে নিয়মিত মিসরে আসতেন। সিএনএন।

print

LEAVE A REPLY