স্বাধীনতার পর ১ হাজার ৩৭৪ দিন হরতাল

40994_1বিশ্বে সর্বপ্রথম ১৭৮৬ সালে হরতাল বা অবরোধ শুরু হলেও এই উপমহাদেশে হরতালের আগমন ঘটে ১৯১৮ সালে। যে ব্যক্তিটি এই হরতালের আগমন ঘটান তার নাম মোহনদাস করমচাঁদ গান্ধী বা মহাত্মা গান্ধী। আর বাংলাদেশে যিনি হরতালের প্রচলন করেন তার নাম মজলুম জননেতা মওলানা আব্দুল হামিদ খান ভাসানি।

বর্তমানে বাঙ্গালী জাতির জীবনে প্রতিদিনের তিনবেলা খাবারের মত হরতালও যেন একটি নিয়মতান্ত্রিক ব্যাপার। বাংলাদেশে মূলত ক্ষমতার পালা বদলের জন্য হরতাল পালন করা হয়।

হরতাল একটি গণতান্ত্রিক অধিকার হলেও বিভিন্ন সময়ে চালিত বেসরকারি জরিপে দেখা যায়, বাংলাদেশের সংখ্যাগরিষ্ঠ মানুষ হরতাল চায় না। তবুও বাংলাদেশ স্বাধীন হওয়ার পর এ পর্যন্ত ১ হাজার ৩৭৪ দিন হরতাল হয়েছে।

বিভিন্ন পরিসংখ্যান থেকে প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী, ১৯৭২ থেকে ১৯৯০ সালে এরশাদ সরকারের পতন পর্যন্ত দেশে জাতীয়, আঞ্চলিক ও স্থানীয় পর্যায়ে মোট হরতাল হয়েছে ৪০৯ দিন। অন্য দিকে এরশাদ সরকারের পতনের পর চারটি গণতান্ত্রিক সরকারের আমলে দেশে মোট হরতাল হয়েছে ৯৬৫ দিন।

পরিসংখ্যানে দেখা যায়, স্বাধীনতার পর মুজিব সরকারের আমলে (১৯৭২-১৯৭৫) মোটি ২২ দিন হরতাল হয়েছে। এর মধ্যে জাতীয়ভাবে ৫ দিন, ঢাকায় ও আঞ্চলিক হরতাল ৫ দিন ও স্থানীয় পর্যায়ে ১২ দিন হরতাল হয়েছে।

১৯৭৫-এর পটপরিবর্তনের পর খন্দকার মোশতাক, জিয়া ও সাত্তারের আমলে (১৯৭৫-১৯৮২) মোট হরতাল হয়েছে ৫৯ দিন। এর মধ্যে জাতীয়ভাবে ৬ দিন, ঢাকায় ও আঞ্চলিক পর্যায়ে ৯ দিন ও স্থানীয় পর্যায়ে ৪৪ দিন হরতাল হয়েছে।

এরশাদ সরকারের আমলে (১৯৮২-১৯৯০) দেশে মোট হরতাল হয়েছে ৩২৮ দিন। এর মধ্যে জাতীয়ভাবে ৭২ দিন, ঢাকায় ও আঞ্চলিক পর্যায়ে ৫৬ দিন ও স্থানীয় পর্যায়ে ২০০ দিন হরতাল হয়েছে।

১৯৯১ সাল থেকে ২০০৮ সাল পর্যন্ত হরতাল:

 

১৯৯১ সাল থেকে ১৯৯৬ সাল পর্যন্ত বিএনপি ক্ষমতায় থাকা অবস্থায় আওয়ামী লীগ ১৭৩ দিন হরতাল পালন করেছে। তাবে বাংলাদেশ প্রেস ইনস্টিটিউটের প্রকাশিত এক প্রতিবেদন অনুযায়ী ১৯৯০ সালের ৭ ডিসেম্বর থেকে ১৯৯৬ সালের ৩০ মার্চ পর্যন্ত জাতীয়ভাবে ৮১ দিন, ঢাকা ও আঞ্চলিকভাবে ৬৯, স্থানীয়ভাবে ২৬৬ দিনসহ মোট ৪১৬ দিন হরতাল পালিত হয়েছে।

এর পর ১৯৯৬ থেকে ২০০১ সাল পর্যন্ত আওয়ামী লীগ আমলে মোট হরতাল হয়েছে ২৮৩ দিন। এর মধ্যে জাতীয়ভাবে ৪৫ দিন, ঢাকা ও আঞ্চলিকভাবে ৪৭ দিন, স্থানীয়ভাবে ১৯১ দিনসহ মোট ২৮৩ দিন হরতাল হয়েছে। এ সময়ে বিরোধী দল বিএনপি জাতীয় পর্যায়ে সারাদেশে ৫৯ দিন হরতাল করেছে।

২০০১ থেকে ২০০৭ সাল পর্যন্ত বিরোধী দলে থেকে আওয়ামী লীগ ১৩০ দিন হরতাল করেছে।

২০০৯ সাল থেকে ২০১৫:

আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন মহাজোট সরকারের আমলে (২০০৯-২০১৩) প্রধান বিরোধী দল বিএনপি ৩৫ দিন হরতাল পালন করে।

২০১৫ সালের ৫ জানুয়ারি থেকে ৭ ফেব্রুয়ারী পর্যন্ত টানা ৩৩ দিন অবরোধ পালন করছে বিএনপি-জামায়াত নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোট।

হরতালে ক্ষতির পরিমান :

দেশে শিল্পায়নের বিকাশ ও অনৈতিক কর্মকাণ্ড বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে এবং সহিংস হরতাল-অবরোধের কারণে ক্ষতির পরিমাণ প্রতিবছরই বাড়ছে। তবে ক্ষয়ক্ষতির সঠিক কোনো হিসাব নেই।

নব্বইয়ের দশকের শেষের দিকে এক দিনের হরতালে আর্থিক ক্ষতির হিসাব করা হয়েছিল ৩৮৬ কোটি টাকা। পরবর্তীতে হরতালের ক্ষতির আর কোনো সমীক্ষা পাওয়া যায় না।

তবে ব্যবসায়ী সংগঠনগুলোর মতে, বর্তমানে এক দিনের হরতালে ক্ষতির পরিমাণ প্রায় ২০ কোটি ডলার। টাকার হিসাবে প্রায় ১৬০০ কোটি টাকা।

ইউএনডিপির একটি রিপোর্টে ২০০৫ সালে প্রকাশিত তথ্য অনুযায়ী ১৯৯০ -১৯৯১ অর্থ বছর থেকে হরতালের কারনে প্রতি অর্থবছরে বাংলাদেশের জাতীয় অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধিতে গড়ে ক্ষতি হয়েছে ৮৪ হাজার ১৮৫ কোটি টাকা।

print

LEAVE A REPLY