ছাত্রীকে লাঞ্ছিতের ঘটনায় ৩ জনের রিমান্ড মঞ্জুর

ঢাকা: উত্তরা ইউনিভার্সিটির এক ছাত্রীকে লাঞ্ছিত হওয়ার ঘটনায় গ্রেপ্তারকৃত ৩ জনকে ৩ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছে আদালত।

মঙ্গলবার আদালত এই তিন আসামির ৩ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

এর আগে বেসরকারী উত্তরা বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্রীকে যৌন হয়রানির চেষ্টার ঘটনায় গণপরিবহন তুরাগের চালকসহ তিনজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

সোমবার সন্ধ্যায় রাজধানীর সায়েদাবাদ থেকে গুলশান থানা পুলিশের একটি দল বাসসহ তাদের গ্রেপ্তার করে। গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন-গ্রেট তুরাগ পরিবহনের চালক রুমান (২৭), সুপারভাইজার মনির (২৭) এবং হেলপার নয়ন (২৯)। বিষয়টি নিশ্চিত করে ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) গুলশান থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবু বকর সিদ্দিক জানান, সায়েদাবাদ থেকে বাসসহ তিনজনকে গ্রেপ্তার করে থানায় আনা হয়। পরে মামলার বাদী তাদের শনাক্ত করেন।

এর আগে রবিবার গ্রেট তুরাগ পরিবহনের একটি বাসে বিশ্ববিদ্যালয়টির ছাত্রীকে যৌন হয়রানির চেষ্টা করে চালক, সুপারভাইজার ও হেলপার। এ ঘটনায় ওই ছাত্রী বাদী হয়ে গুলশান থানায় একটি মামলা করেন। একই সঙ্গে তুরাগ পরিবহনের ৪০টি বাস আটকে রেখে বিক্ষোভ করেন বিশ্ববিদ্যালয়টির শিক্ষার্থীরা।

শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের মুখপাত্র পারভেজ হোসেন বলেন, বাসের চালক, সুপারভাইজার ও হেলপারকে গ্রেপ্তার করলেও আটকে রাখা বাসা ছাড়া হবে না। আসামিদের আদালতে নেয়ার পর কারাগারে না নেয়া পর্যন্ত বাস ছাড়ব না। কারণ বাস মালিকরা লিয়াজোঁ করে আসামিদের ছাড়িয়ে নিতে পারে। জড়িতদের শাস্তি না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চলবে বলে জানান তিনি।

এক শিক্ষার্থীকে যৌন হয়রানির চেষ্টার ঘটনায় দোষীদের গ্রেপ্তার না করা পর্যন্ত তুরাগ পরিবহনের ৪০টি বাস উত্তরা ইউনিভার্সিটির ক্যাম্পাসে আটক থাকবে জানিয়েছেন শিক্ষার্থীরা।

এদিকে, এ ঘটনায় সোমবার বিকেলে উত্তরা ইউনিভার্সিটির প্রশাসনিক ভবনের সামনে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে শিক্ষার্থীরা তুরাগ পরিবহনের বাসটির চালকসহ দুই হেল্পারকে দ্রুত শাস্তির আত্ততায় নিয়ে আসার দাবি জানান। ওই সময় তারা জানান, যে পর্যন্ত ওই তিনজনের শাস্তি চূড়ান্ত না হবে আন্দোলন চলবে। সংবাদ সম্মেলনে উত্তরা ইউনিভার্সিটির কয়েকশ’ শিক্ষার্থী উপস্থিত ছিলেন।

print

LEAVE A REPLY