শখ করে কেউ বস্তিতে থাকে না

রাজধানীর যাত্রাবাড়ী এলাকার নামপাড়া, পাড় গেন্ডারিয়া, মীর হাজিরবাগ, ঘুণ্টিঘর বস্তিবাসীরা তাদের পুনর্বাসনের দাবি জানিয়েছেন। বুধবার জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে বস্তিবাসীদের সংগঠন জনকল্যাণ সমিতির (বাস্তুহারা) আয়োজনে এক মানববন্ধনে এ দাবি জানানো হয়।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, ঢাকা মহানগরীর প্রায় ৭০ লাখ মানুষ বস্তিতে বসবাস করে। গ্রামের মানুষ ভিটেমাটি ও জায়গা-জমি হারিয়ে জীবিকার তাগিদে গ্রাম ছেড়ে প্রতিনিয়ত ঢাকা শহরে কাজের সন্ধানে আসে। এসব সহায় সম্বলহীন মানুষ শহরে রিকশাচালক, দিনমজুর, গার্মেন্টস শ্রমিক, হকার বা ফেরিওয়ালার কাজ করে যে অল্প টাকা পায়, সে টাকা দিয়ে খেয়ে-পরে কোনোমতে বেঁচে থাকে। সে টাকা দিয়ে বাসা ভাড়া করে থাকা সম্ভব নয়।

তারা বলেন, ঢাকার বাইরে কাজ নেই, যে কারণে এসব মানুষ ঢাকায় এসে বস্তিতে ওঠে। বাধ্য হয়ে আলো-বাতাস পানির অভাবে অস্বাস্থ্যকর পরিবেশেই বাস করে। এত কষ্ট করে থাকার পরও আমরা বলতে চাই, পুনর্বাসনের ব্যবস্থা না করে বস্তিবাসীদের উচ্ছেদ করবেন না। সরকার যদি বস্তিবাসীদের পুনর্বাসনের জন্য আন্তরিক হয় তাহলে প্রচুর শিল্পকারখানাসহ অন্যান্য কর্মক্ষেত্রেও গড়ে উঠবে। তখন তারা বাঁচার মতো আয়ের অধিকারী হবে। কোনো মানুষ শখ করে বস্তিতে থাকতে চায় না। আমরাও চাই নাগরিক সুবিধাসম্পন্ন জীবন-যাপন করতে। তাই আমাদের পুনর্বাসনের ব্যবস্থা করুন। আমরও চাই ভালোভাবে বাঁচতে।

মানববন্ধনে ওইসব বস্তির বাসিন্দা রাবেয়া সুলতানা, সাইদুর রহমান, আক্কাস আলী, জোৎস্না আক্তারসহ অসংখ্য বস্তিবাসী উপস্থিত ছিলেন।

উৎসঃ   জাগোনিউজ
print

LEAVE A REPLY