দুই মামলায় জামিন পেলেন ব্যারিস্টার মইনুল

সাংবাদিক মাসুদা ভাট্টিকে নিয়ে মানহানিকর মন্তব্যের জেরে দুই মামলায় সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারে উপদেষ্টা ব্যারিস্টার মইনুল হোসেনকে ছয় মাসের অন্তর্বর্তীকালীন জামিন দিয়েছেন হাইকোর্ট। রংপুর ও জামালপুরের দুই মামলায় আজ বুধবার রেজাউল হক ও বিচারপতি জাফর আহমেদের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ জামিন দেন। একই সঙ্গে মামলা দুটির কার্যক্রম স্থগিত করে এর নথি তলব করা হয়েছে।

মইনুল হোসেনের আইনজীবী খন্দকার মাহবুব হোসেন বলেন, ‘হাইকোর্ট জানিয়েছেন মানহানির মামলায় যাকে আপমানিত করা হয়েছে তাকেই মামলা করতে হবে। বাইরের কারও মামলা করার সুযোগ নেই।’১৬ অক্টোবর মধ্যরাতে একাত্তর টেলিভিশনের এক অনুষ্ঠানে আলোচক ছিলেন সাংবাদিক মাসুদা ভাট্টি ও সাখাওয়াত সায়ন্ত। একপর্যায়ে লাইভে যুক্ত হন আইনজীবী মইনুল হোসেন। এ সময় মইনুলের কাছে মাসুদা ভাট্টির প্রশ্ন ছিল, ‘সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে একটি আলোচনা চলছে, আপনি সদ্য গঠিত জাতীয় ঐক্যফ্রন্টে এসে জামায়াতের প্রতিনিধিত্ব করছেন কি না?’ মইনুল হোসেন এ প্রশ্নের জবাবে একপর্যায়ে মাসুদা ভাট্টিকে ‘চরিত্রহীন’ বলে মন্তব্য করেন।

এই ঘটনায় সারা দেশে মইনুল হোসেনের বিরুদ্ধে ২২টি মামলা হয়েছে, যার মধ্যে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের প্রথম মামলা। অপর মামলাগুলোর মধ্যে মাসুদা ভাট্টি নিজে ঢাকার সিএমএম আদালতে একটি মামলা করেছেন। রংপুরে হওয়া একটি মামলায় ব্যারিস্টার মইনুল হোসেনকে গত ২২ অক্টোবর গ্রেপ্তারের পর গত ২৩ অক্টোবর ঢাকা সিএমএম আদালত তাকে কারাগারে পাঠায়।

উৎসঃ   আস
print

LEAVE A REPLY