জাবির ‘ইয়াবা’ সিন্ডিকেট নিয়ন্ত্রণে ছাত্রলীগ নেতা!

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) ‘ইয়াবা ব্যবসা’র একটি সিন্ডিকেট নিয়ন্ত্রণ করার অভিযোগ পাওয়া গেছে শাখা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি ভূঁইয়া মোহাম্মদ এনামুল হাসান নোলকের বিরুদ্ধে। প্রশাসন এমন তথ্য জানার পর তার হলের কক্ষটি সিলগালা করে দিয়েছে। ছাত্রলীগ নেতার কক্ষটি হলো বিশ্ববিদ্যালয়ের আ ফ কামালউদ্দিন হলের ২১৩ নম্বর কক্ষ।

জানা যায়, ছাত্রলীগ নেতা নোলক ক্যাম্পাসে একটি ‘ইয়াবা’ সিন্ডিকেট নিয়ন্ত্রণ করেন। প্রায় দেড় মাস আগে তিনি একটি পার্সেল আনতে ৪২ ব্যাচের একজন শিক্ষার্থীকে ঢাকার উত্তরায় পাঠান। পার্সেলটিতে তার মায়ের ওষুধ আছে বলে ওই শিক্ষার্থীকে জানানো হয়। নোলকের দেয়া ঠিকানা থেকে পার্সেলটি গ্রহণ করে ফেরার পথে ওই শিক্ষার্থীকে তল্লাশি করে পুলিশ। তল্লাশিতে পুলিশ পার্সেলটিতে বেশ কিছু ইয়াবা জব্দ করে এবং ওই শিক্ষার্থীকে আটক করে। প্রায় দেড় মাস জেল খেটে সম্প্রতি জামিন পেয়েছেন শিক্ষার্থী।

এই ব্যাপারটি জানতে পেরে হল প্রশাসন নোলকের কক্ষটি সিলগালা করে দেন। তবে এর প্রকৃত কারণ প্রকাশ করা হয়নি। এতদিন ধরে বিষয়টি ক্যাম্পাসেও জানাজানি হয়নি।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ও হলটির প্রভোস্ট সিকদার মো. জুলকারনাইন জানিয়েছেন,‘নোলকের ছাত্রত্ব না থাকায় কক্ষটি সিলগালা করে রাখা হয়েছে।’ এদিকে ইয়াবার চালান আনতে গিয়ে শিক্ষার্থী আটকের বিষয়টি জানেন কিনা জানতে চাইলে তিনি জানান, বিষয়টি শুনেছেন।

এই বিষয়ে জানতে ছাত্রলীগ সহ-সভাপতি ভূঁইয়া মোহাম্মদ এনামুল হাসান নোলক ব্যবহৃত নম্বরটিতে বেশ কয়েকবার চেষ্টা করলেও সেটি বন্ধ পাওয়া যায়।

অন্যদিকে, শাখা ছাত্রলীগ সভাপতি জুয়েল রানা জানান, ‘তিনি বিষয়টা জানেন না। তবে খোঁজ-খবর নিবেন।’

ব্রেকিংনিউজ

print

LEAVE A REPLY